Press "Enter" to skip to content

বড়সড় ভাঙন অনুব্রতর দুর্গে, দুই হাজার কর্মী সমর্থক তৃণমূল ছেড়ে যোগ দিলেন বিজেপিতে

রাজ্য জুড়ে চলছে ঝড়। আর সে ঝড়েই ভয়ভিত হতে শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস গোটা রাজ্যে সন্ত্রাসের আবহাওয়া সৃষ্টি করেছে। রাজ্যের পরিস্থিতি এখন এতটাই ভয়াবহ যে, রাজ্যে রাষ্ট্রপতি শাসন জারি করার পরিস্থিতি হয়ে গেছে। গত শনিবার উত্তর ২৪ পরগণার সন্দেশখালিতে তৃণমূলের গুণ্ডাদের হাতে বিজেপির চার কর্মীর মৃত্যুর পর রাজ্যের আইন শৃঙ্খলা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। এমনকি রিপোর্টে ধরা পড়েছে যে, রাজ্য সরকারের আমলারাই রাজ্যে এইরকম হিংসা সৃষ্টি হওয়ার পিছনে মদত যোগাচ্ছে। এমত অবস্থায় আজ পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপাল কেশরীনাথ ত্রিপাঠির সাথে বৈঠক হয় কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহ এবং প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সাথে।

সূত্র থেকে পাওয়া অনুযায়ী, রাজ্যপাল কেশরীনাথ ত্রিপাঠি রাজ্যের পরিস্থিতি সমন্ধ্যে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে পরিস্থিতি আরও অবনতি হতে পারে বলে জানিয়েছেন। রাজ্যপালের রিপোর্ট পেশের পর রাজ্যে ১৫০ কোম্পানির মোতায়েন করার কথা ভাবছে কেন্দ্র সরকার। তবে রাজ্যে এখনই রাষ্ট্রপতি শাসনে সহমত পোষণ করে নি কেন্দ্র সরকার।

একদিকে রাজ্যের পরিস্থিতি নিয়ে সম্পূর্ণ বিষয় যেমন খতিয়ে দেখছে কেন্দ্র সরকার। অন্যদিকে রোজ রোজ তৃণমূলের ভাঙন চরম ভাবে দুশ্চিন্তায় ফেলেছে শাসক দল তৃণমূলকে। আজ তৃণমূলের দাপুটে নেতা তথা বীরভূম জেলার তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি মণ্ডলের দুর্গে বড়সড় ভাঙন ধরালো বিজেপি।

আজ বোলপুরের একটি বেসরকারি অনুষ্ঠান ভবনে বিজেপি দ্বারা আয়োজিত একত সভায় তৃণমূল ছেড়ে ২ হাজার কর্মী সমর্থক আনুষ্ঠানিক ভাবে যোগ দেন বিজেপিতে। এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বীরভূম জেলার সহ সভাপতি দিলীপ ঘোষ, জেলার সাধারণ সম্পাদক কালো মণ্ডল এবং বিজেপির অন্যান্য নেতৃত্ববৃন্দ।

বীরভূম জেলার বিজেপি সভাপতি রামকৃষ্ণ রায় সদ্য বিজেপিতে যোগ দেওয়া কর্মী সমর্থকদের উদ্দেশ্যে বলেন, ‘ আপনারা মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জীকে ‘জয় শ্রী রাম” পোস্ট কার্ড লিখে পাঠান। আপনারা তৃণমূলের আক্রমণকে প্রতিহত করার জন্য তৈরি থাকুন, দরকার পড়লে সবসময় বাঁশ, লাঠি জোগাড় করে রাখুন। ওঁরা আক্রমণ করতে এলেই প্রতিরোধ গড়ে তুলুন।”

দিন কয়েক আগেই বীরভূম জেলার তৃণমূলের দাপুটে নেতা তথা বিধায়ক মনিরুল ইসলাম বিজেপিতে যোগ দিয়েছিলেন। ওনার বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পর বিজেপির অন্দরেই চরম অশান্তির সৃষ্টি হয়। এরপর তিনি নিজে থেকে ইস্তফা দেওয়ার জন্য প্রস্তুতও হন। তবে ওনাকে এখনো বিজেপি সক্রিয় ভাবে কাজে লাগায়নি। আপাতত উনি এখন দলে টুইএলভ ম্যান হিসেবে রয়েছেন। আর ওনার যোগদানের পর আজকে তৃণমূল কংগ্রেসে এই ভাঙন চরম চিন্তায় ফেলছে অনুব্রত মণ্ডল সমেত গোটা তৃণমূল দলকে।

Comments are closed.