Press "Enter" to skip to content

CBI এর থেকেও সক্রিয় যোগীর পুলিশ! মমতা শাসিত পশ্চিমবঙ্গ থেকে অপরাধীকে তুলে নিয়ে গেল উত্তরপ্রদেশ পুলিশ।

একদিকে যখন মমতা ব্যানার্জীর পুলিশ কেন্দ্রীয় সংস্থা CBI কে ঠিকমত তদন্ত করতে বাধা দিচ্ছে তখন অন্যদিকে উত্তরপ্রদেশ পুলিশ এমন কারনামা করে দেখিয়েছে যা অত্যন্ত প্রশংসনীয়। CBI কলকাতায় এসে তদন্ত করার জন্য লাগাতার সংঘর্ষ করছে অন্যদিকে যোগী আদিত্যনাথের পুলিশ কোনো বাধা ছাড়াই জালি টাকার ব্যাবসায়ী আব্দুল সালামকে টেনে নিয়ে গিয়ে উত্তরপ্রদেশের জেলে ঢুকিয়েছে। যোগী পুলিশ এটা সাফ করে দিয়েছে অপরাধীদের ধরার জন্য তাদের কাছে দূরত্ব কোনো ব্যাপার নয়। আপাতত উত্তরপ্রদেশ পুলিশের এই দুঃসাহসিক কাজ শুধু প্রদেশে নয়, পুরো দেশজুড়ে প্রশংসা কুড়িয়েছে।

জানিয়ে দি, অপরাধী আব্দুল সালাম পশ্চিমবঙ্গে লুকিয়ে ছিল। পশ্চিমবঙ্গে সে নিজের নাম পরিবর্তন করে মিঠুন রেখেছিল। আব্দুল ভেবেছিল যে সে নাম পরিবর্তন করে সকলের চোখে ধুলো দিয়ে দেবে। কিন্তু নাম পরিবর্তন করে আব্দুল পশ্চিমবঙ্গ পুলিশের থেকে লুকিয়ে থাকলেও উত্তরপ্রদেশের পুলিশের থেকে তার বাঁচা অসম্ভব ছিল। মমতা ব্যানার্জী শাসিত পশ্চিমবঙ্গের মালদা জেলায় নাম পরিবর্তন করে লুকিয়ে ছিল কট্টরপন্থী আব্দুল।

জালি নোটের ব্যাবসা করা আব্দুল সালামের উপর ৫০ হাজার টাকার পুরস্কার ঘোষিত ছিল। উত্তরপ্রদেশের স্পেশাল টাস্ক ফোর্স পুলিশ মালদা জেলা থেকে এই আব্দুলকে তুলে নিয়ে গেছে। জিজ্ঞাসাবাদ করার পর আব্দুল সালাম বলেছে যে সে বাংলাদেশ থেকে পশ্চিমবঙ্গ পথে জালি নোট প্রবেশ করার। আর এই কাজের জন্য আরো একজন বড় কট্টরপন্থী তার সাথে যুক্ত রয়েছে যার নাম জ্বালাউদ্দিন। জ্বালাউদ্দিন বাংলাদেশ থেকে জালি নোট সঞ্চালন করে আর বাকি কাজ সম্পন্ন করে আব্দুল।

মিঞা আব্দুল সালাম নিজের কালো ব্যাবসা চালানোর জন্য নাম পরিবর্তন করে মিঠুন রেখেছিল। যোগী পুলিশ এই অপরাধীকে মালদার কালিয়াচক থেকে গ্রেপ্তার করে উত্তরপ্রদেশের বান্দ্রা নিয়ে যাচ্ছে। উত্তরপ্রদেশের স্পেশাল পুলিশ টাস্ক ফোর্সের বরিষ্ট অধিকারীক অভিষেক সিং জানিয়েছন যে জালি নোট পাচারের পুরো নেটওয়ার্ককে ধরার জন্য এই অপরাধীকে তদন্তকারী সংস্থার হাতে তুলে দেওয়া হবে। জানিয়ে দি যোগী আদিত্যনাথ ক্ষমতায় আসার পর উত্তরপ্রদেশ পুলিশের এক্টিভ বাটম অন করে দিয়েছে। উত্তরপ্রদেশে গুন্ডা দমন কার্য চালানোর পর এখন পশ্চিমবঙ্গ থেকেও অপরাধীদের তুলে নিয়ে যাচ্ছে যোগী পুলিশ।

Be First to Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *