Press "Enter" to skip to content

আজকের দিনে ভারত মায়ের জন্য বলিদান হয়েছিলেন ভগত সিং, সুখদেব ও রাজগুরু! সেকুলার পাঠ্যপুস্তকে ইনাদের আতঙ্কবাদ তকমা দিয়েছে তথাকথিত লেখকরা।

আজ ২৩ শে মার্চ কোনো সাধারণ দিন নয়, আজ ভারতীয় ইতিহাসের এমন এক দিন যা কখনো ভুলিয়ে দেওয়া যাবে না। আজকের দিনই ভারত মাতার ৩ বীর পুত্র ভারত মায়ের স্বাধীনতার জন্য ফাঁসিকে বেছে নিয়েছিলেন। সেই তিন বীরপুত্র ছিলেন ভগতসিং, । আজ এই তিন বীরের বলিদান দিবস। যে বয়সে যুবকরা কলেজে আনন্দফুর্তি করে সেই বয়সে ভারত মায়ের স্বাধীনতার জন্য ফাঁসিতে ঝুলেছিলেন ভগত সিং, ও সুখদেব।

পরবর্তীকালে এই অমর বলিদানিদের জন্য দেশ স্বাধীন হলে কংগ্রেস পুরো শ্রেয় নিজের উপর নিয়ে নেয়। শুধু তাই নয়, তথাকথিত সেকুলার লেখকরা এই বীর স্বাধীনতা সংগ্রামীদেরকে সন্ত্রাসবাদী আখ্যা দিয়ে বই প্রকাশ করে। আজ ভগত সিং, সুখদেব, রাজগুরুকে স্মরণ করার সাথে সাথে বেশকিছু বিষয়কে মনে রাখা প্রয়োজন।

ভগত সিং, সুখদেব, রাজগুরুর ফাঁসি নিয়ে বলতে গিয়ে এক ইংরেজ আধিকারিক বলেছিলেন- তিন জনের ফাঁসি দেওয়ার জন্য আমাদের থেকে তাড়া কংগ্রেস ও মোহনদাস করমচাঁদ গান্ধীর ছিল। BHU এর প্রতিষ্ঠাতা পন্ডিত মদনমোহন মালব্য তিন জনের ফাঁসি আটকানোর জন্য একটা পিটিশন নিয়ে এসেছিলেন। কিন্তু ইংরেজদের শর্ত ছিল যে পিটিশনে কংগ্রেসের সভাপতি ও গান্ধীর স্বাক্ষর থাকতে হবে।

ওই সময় কংগ্রেসের সভাপতি ছিলেন জওহরলাল নেহেরু, নেহেরু ও গান্ধী পিটিশনে স্বাক্ষর করতে অস্বীকার করে দেন। বলা হয় যে নেহেরু ও গান্ধী চাইতেন দেশ উনাদের পেছনে চলুক, অন্যদিকে ২৩ বছরের ভগত সিং ও উনার সাথীরা দেশে বেশি জনপ্রিয় হয়ে উঠেছিলেন। দেশের রাষ্ট্রবাদীরা এই তিনজনকে বাঁচানোর জন্য ভরপুর প্রয়াস করেছিল কিন্তু নেহেরু ও গান্ধী সব চেষ্টা বিফল করে দেন। আজ ভগত সিং, সুখদেব ও রাজগুরুকে স্মরণ করার দিন। একইসাথে দেশের আসল ইতিহাসকে জানার দিন যা কংগ্রেসিরা পাঠ্যপুস্তক থেকে মুছে দিয়েছে।

10 Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.