Press "Enter" to skip to content

বড় খবর: সরকারি অনুমতি পেল বৈদিক শিক্ষা বোর্ড! এবার স্কুলে পড়ানো হবে বেদ, পুরান রামায়ণ মহাভারত।

একটা গাছকে যদি তার শিকড় থেকে আলাদা করে দেওয়া হয় তাহলে সেই গাছের অস্থিত বেশিদিন পর্যন্ত টিকে থাকে না। একইভাবে কোনো সমাজ যদি তার নিজের শিক্ষা, সভ্যতা ও সংস্কার থেকে আলাদা হয়ে যায় তাহলে সেই সমাজ অস্তিত্বের জন্য সংঘর্ষ করতে শুরু করে এবং অন্য সমাজের গোলামী করতে শুরু করে। এর সবথেকে বড় উদাহারণ ভারত। ভারত দেশ এমনটিতে স্বাধীন হলেও শিক্ষা ও সভ্যতার দিক থেকে এখনো সম্পুর্ন স্বাধীন হতে পারেনি। ভারতে সমস্থ শ্রেণীর পাঠক্রম এখনো মেকেলের(ব্রিটিশ নেতা) চালিয়ে যাওয়া নীতি অনুযায়ী পড়ানো হয়। এই কারণে ভারতীয় পাঠ্যক্রমে মহান হিন্দু রাজাদের ইতিহাস বাদ দিয়ে জঙ্গি বাবর, আকবরের ইতিহাস পড়ানো হয়।

ব্রিটিশরা ভারতে শাসন চানলানোর সময় এক নিয়ম করেছিল- যারা ইংরেজি ভাষা শিখবে তারাই চাকরি পাবে, তারাই উচ্চশিক্ষিত হিসেবে গণ্য হবে। লজ্জার ব্যাপার এই যে স্বাধীন ভারতেও এই নিয়ম লাগু রয়েছে। তবে মোদী সরকার ধীরে ধীরে ভারতকে তার নিজস্বতা ফিরিয়ে দেওয়ার উপর কাজ শুরু করে দিয়েছে।ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস থেকে প্রাপ্ত খবর অনুযায়ী, মানব সংশোধন বিকাশ মন্ত্রণালয় বৈদিক শিক্ষার জন্য প্রথম রাষ্ট্রীয় বোর্ড তৈরি করার সিধান্ত নিয়ে ফেলেছে। বিজেপির বেশকিছু রাষ্ট্রবাদী নেতা দেশে বৈদিক শিক্ষার চালু এবং তার প্রসার করার জন্য উঠে পড়ে লেগেছিল। এখন সেই দাবিকে পূরণ করার দিশায় এক বড় পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। শুক্রুবার দিন দিল্লীতে মানব সংশোধন বিকাশ মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী প্রকাশ জাভেদকার এর নেতৃত্বে এক বৈঠকের আয়োজন করা হয়েছিল। সেই বৈঠকে বৈদিক শিক্ষাকে চালু করার জন্য সিধান্তিক মঞ্জুরি দেওয়া হয়েছে।

Vedic education

মহর্ষি সন্দীপানি রাষ্ট্রীয় বেদবিদ্যা প্রতিষ্ঠানের কাউন্সিলকে এক সপ্তাহের মধ্যে বোর্ডের উপনিয়মের সাথে আসার কথা বলা হয়েছে। এর জন্য বৈদিক শিক্ষার উপর পাঠ্যক্রম তৈরি করা হবে এবং পরীক্ষা,প্রমাণপত্র এর জন্যেও নীতি তৈরি করা হবে। উল্লেখ্য, আধুনিক শিক্ষার নামে ভারতে যে শিক্ষা প্রদান করা হয় তার মাধ্যমে ছাত্রছাত্রীরা নিজেদের সভ্যতা, সঙ্গস্কৃতি থেকে আলাদা হয়ে যাচ্ছে। অন্যদিকে পাশ্চাত্য সভ্যতার মানুষজন ভারতীয় বেদ, উপনিষদ, গীতার শিক্ষাকে ধীরে ধীরে আপন করে নিচ্ছে। এই পরিস্থিতিতে দাঁড়িয়ে সচেতন ভারতীয় সমাজের দাবি যে ভারতীয় ছাত্রছাত্রী সমাজকে সঠিক শিক্ষা প্রদান করা হোক।যাতে তারা নিজের সভ্যতা, সঙ্গস্কৃতি সম্পর্ক জ্ঞানলাভ করে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যেতে পারে। সূত্রের খবর সরকার বোর্ডকে একটা বিশেষ দায়িত্ব প্রদান করবে। বোর্ডের অন্তর্গত এমন স্কুল সামিল করা হবে যেগুলিতে আধুনিক শিক্ষার সাথে সাথে বৈদিক শিক্ষা দেওয়া হবে।

Vedic education

এর ফলে আধুনিক শিক্ষার নামে ভারতীয় শিক্ষায় যে বামপন্থী প্রভাব রয়েছে তা নষ্ট করা হবে এবং ভারত নিজের সভিমান ফিরে পেতে থাকবে। ভারতের নিজস্বতা ও আত্মসন্মাম ফিরিয়ে আনার জন্য সরকারের এটা খুবই সহসিক পদক্ষেপ বলেই মনে করা হচ্ছে। অবশ্য এই শিক্ষাপদ্ধতি পুরো ভারতবর্ষ জুড়ে চালু করতে কিছু সময় অপেক্ষা করতে হবে।

Be First to Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.