Press "Enter" to skip to content

ভাইরাল ভিডিও! আমাকে গুলি করে মেরে ফেল, আমি বাঁচতে চাই না: বললো পাকিস্থানে অত্যাচারিত হিন্দু মেয়ের বাবা।

ভারত ভেঙে ধর্মের নামে জিহাদ করে আলাদা দেশ পাকিস্থান তৈরি করেছিল কট্টরপন্থীরা। সেই সময় বহু হিন্দুও পাকিস্থানে থেকে গেছিল, যাদের কাছে আজ পাকিস্থান নরকের সমান। পাকিস্থানে হিন্দু সংখ্যা কমতে কমতে এখন শূন্যের দিকে এগোতে শুরু হয়েছে। এর কারণ পাকিস্থানের হিন্দুদের উপর জিহাদি আক্রমন খুবই সাধারণ ঘটনা। হিন্দুদের মারধর করে ধর্ম পরিবর্তন করা, হিন্দু কন্যাদের তুলে নিয়ে গিয়ে তাদেরকে অন্য সম্প্রদায়ের লোকের সাথে নিকাহ করে দেওয়ার ঘটনা প্রায় লক্ষ করা যায়।

সম্প্রতি হোলির দিনে পাকিস্থান থেকে এমন একটা সামনে এসেছিল। যা আমরা আমাদের পাঠকদের জানিয়েছিলাম। ছিল এই যে হোলির দিনে রীনা ও রাবিনা নামে দুই বোন হলি খেলছিল। সেই সময় কট্টরপন্থীরা এসে দুই বোনকে তুলে নিয়ে চলে যায়। তখন ওই পর্যন্তই ছিল। আর এখন এই বিষয়ে আরো সামনে আসছে যা পাকিস্থানের আসল ছবি সবার সামনে খুলে দেবে। প্রাপ্ত অনুযায়ী, ওই দুই বোনকে জোর করে ইসলাম ধর্ম গ্রহন করানো হয়েছে এবং মুসলিমদের সাথে বিয়ে দেওয়া হয়েছে।

দুই বোনকে হুমকি দেওয়া হয়েছিল যে যদি তারা কট্টরপন্থীদের কথা মতো কাজ না করে তবে তাদের পরিবারকে শেষ করে দেওয়া হবে। দুই হিন্দু বোনের বাবার ভিডিও এখন সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে সামনে এসে গেছে যা দেখলে আপনার মন ব্যাথিত হবে। পাঠকদের জন্য ভিডিও নীচে দেওয়া হয়েছে।

রিনা, রাবিনার বাবা এখন মানুষের কাছে আবেদন করছে, তাকে যেন কেউ গুলি করে মেরে ফেলে। কারণ পাকিস্থানে হিন্দু হয়ে জন্মানো পাপ। রিনা, রাবিনার বাবা পুলিশের কাছে গিয়েও কোনো সাহায্য পাইনি। পাকিস্থানের ঘটনা নিয়ে এখনো কোনো দালাল মিডিয়া মুখ খোলেনি। BBC ও অন্যান্য দালাল মিডিয়া যারা দিন রাত পাকিস্থানের গুনগায় তারাও এখন মুখে লাগাম লাগিয়েছে। হিন্দুদের হয়ে আওয়াজ তোলার জন্য কোনো মিডিয়া নেই। পাকিস্থানে হিন্দুদের জন্য কোনো আইন কাজ করে না। কোনো বুদ্ধিজীবী, মিডিয়া এটা নিয়ে আওয়াজ তুলতে রাজি নয়। এমনকি হিন্দুবহুল ভারতের মিডিয়াও এই ইস্যুতে নিশ্চুপ থাকে।

10 Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.