Press "Enter" to skip to content

“ধৰ্মনিরিপেক্ষতা চাই না, হিন্দুরাষ্ট্র চাই” এই দাবিতে নেপালের পথে নামলো মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষজন।

২০১৪ সালে বিপুল পরিমাণ ভারতবাসীর সমর্থন পেয়ে কেন্দ্রে বিজেপি সরকার গঠন করেছে। তারপর থেকে ভারতবর্ষতে এই মুহূর্তে বিজেপি শাসন চলছে। মোদী যুগে ভারতবর্ষ সামরিক, অর্থনৈতিক সব কিছুর সমান উন্নতি হয়েছে বিজেপির শাসনকাল অর্থাৎ এই চার বছরে। কিন্তু এই সব কিছুর পরও দেশের অন্যান্য বিরোধী দল গুলি মোদী সরকারের উপর অভিযোগ আনেন যে মোদী যুগে আমাদের দেশের ধর্মনিরপেক্ষতা হারিয়ে গেছে। ভারতবর্ষ যেখানে ধর্মনিরপেক্ষতা নিয়ে ব্যাস্ত সেখানে আমাদের প্রতিবেশী দেশ ে জোরদার দাবি উঠল ‘’ করবার। জানলে অবাক হবেন যে, ে বসবাসকারী মুসলিমরাও এবার দাবি তুলল যে কে ‘হিন্দুরাষ্ট্র’ করতে হবে।

এবার নেপালের মুসলিমরা দাবি তুললেন যে আর কোনো ধর্মনিরপেক্ষতা নয়। এবার সবকিছু পরিবর্তন করে নেপাল কে ‘হিন্দুরাষ্ট্র’ হিসাবে ঘোষনা করতে হবে। নেপালে রাজতন্ত্র পতন হয় ২০০৮ সালে তখন থেকে এখন অব্দি নেপাল সরকার তাদের সংবিধান তৈরির কাজ শেষ করে উঠতে পারে নি। তাই সংবিধানে প্রস্তাব এসেছে যে নেপাল কে ধর্মনিরপেক্ষ দেশ করতে হবে। তার ফলে নেপালের হিন্দু সংগঠনগুলি এর বিরুদ্ধে সরব হয়েছেন। কিন্তু এবার দেখা গেল যে, নেপাল কে ধর্মনিরপেক্ষতা করার বিরুদ্ধে সরব হলেন নেপালের নেতানেত্রীরা।

মুসলিমদের যদি নিরাপদে থাকতে হয় তাহলে ধর্মনিরপেক্ষতা নয় ‘হিন্দুরাষ্ট্র’-ই হল একমাত্র পথ। এমনটাই দাবি করেছেন নেপালের মুসলিম নেতারা। আমজাদ আলি নিজেও দাবি করেছন হিন্দুরাষ্ট্রের পক্ষে। তিনি বলেছেন যে, নেপাল কে হিন্দুরাষ্ট্র করতে হবে। কারন আমি চাই আমার ধর্ম ইসলাম সুরক্ষিত থাকুক। আর দেশ যদি হিন্দুরাষ্ট্র হয় তাহলেই একমাত্র এটা সম্ভব।

বাবু পাঠান যিনি হলেন রাষ্ট্রবাদী মুসলিম মঞ্চ নেপালগঞ্জের একজন নেতা তিনি বলেন যে, নেপালি মুসলিমরা হল ধর্মনিরপেক্ষ নেপালের বিরোধী। কারন আমরা এখানে এতদিন একসাথে থেকে এসেছি। তাই এখন যদি ধর্মনিরপেক্ষতার কথা বলা হয় তাহলে সেটার জন্য দেশের মধ্যে হিন্দু-মুসলিম দ্বন্দ্ব শুরু হয়ে যেতে পারে।

নেপালে ২০০৮ সালে গৃহযুদ্ধ হয়েছিল। তখন থেকে দেশে হিন্দু রাজতন্ত্রের পতন হয়। সেই সময় হিন্দুরাষ্ট্র থেকে নেপাল পরিণত হয় ধর্মনিরপেক্ষতা দেশ হিসাবে। তারপর থেকে নেপালের রাজনীতিবিদরা এখন অব্দি সংবিধানের কাজ শেষ করে উঠতে পারে নি। তাই সংবিধানে নেপাল কে যাতে হিন্দুরাষ্ট্র হিসাবে গন্য করা হয়, সেই দাবি তুলে সরব হলেন নেপালে বসবাসকারী মুসলিমরা। তাদের কথায় নেপাল আগে যেমন ছিল তেমনই করে দেওয়া হোক। মুসলিমরা এটাও বলেন যে হিন্দুরাষ্ট্র থাকাকালীন আমরা নিরাপদ ও স্বাধীনভাবে বাঁচতে পারতাম।
#অগ্নিপুত্র