Press "Enter" to skip to content

“আমরা ইচ্ছা করেই রাফেল চুক্তিতে দেরী করিয়েছি, এতে দেশের ভালো হয়েছে”: এন্তোনি,কংগ্রেসি নেতা, পূর্ব সুরক্ষামন্ত্রী।

দেশের পূর্ব সুরক্ষামন্ত্রী ছিলেন এ.কে এন্তোনি, ইনি সোনিয়া গান্ধীর খুব ঘনিষ্ঠ বলেও পরিচিত। সম্প্রতি এ.কে এন্তোনি রাফেল চুক্তি নিয়ে এমন মন্তব্য করেছেন যা নতুন করে বিতর্ক সৃষ্টি করেছে। আসলে পুলবামা হামলার পর ভারত পাকিস্থানের উপর এয়ার স্ট্রাইক করেছিল। যার পর থেকে উত্তপ্ত পরিস্থিতির মধ্যে অনেক ঘটনা ঘটে। এই পরিস্থিতিতে দেশের মানুষ রাফেলের অভাব অনুভব করে এবং সোশ্যাল মিডিয়ায় নিজেদের আওয়াজ তুলে। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীও রাফেল নিয়ে কংগ্রেসের উপর প্রশ্ন তুলেন।

আসলে রাফেল চুক্তি বহু বছর আগে হয়ে যাওয়ার কথা ছিল। কিন্তু কংগ্রেস সেটা হতে দেয়নি। ২০০৭ সালে রাফেল চুক্তি সম্পন্ন হয়ে যাওয়ার কথা ছিল কিন্তু ২০১৪ সাল পর্যন্ত রাফেলের ফাইল পর্যন্ত খুলেনি। মোদী ক্ষমতায় এসে রাফেল চুক্তি সম্পন্ন করে এবং এবার কিছু মাস পরে রাফেল ভারতে আসবে। কংগ্রেস আমল থেকে ভারতের বায়ুসেনা রাফেলের জন্য সরকারের কাছে দাবি জানিয়েছিল। কিন্তু কংগ্রেস দেশের সেনার কথা এক কান দিয়ে শুনতো আর অন্য কান দিয়ে বের করে দিত।

কংগ্রেস আমলে দেশের রক্ষামন্ত্রী ছিলেন এ.কে এন্তোনি, উনাকে সম্প্রতি এই নিয়ে প্রশ্ন করা হলে উনি বিতর্কিত মন্তব্য করে দিয়েছেন। এ.কে এন্তোনি বলেছনে, আমাদের দেশের ভালোর জন্য রাফেল চুক্তিকে দেরি করিয়েছি। রাফেল চুক্তি দেরি হওয়ায় দেশের ভালো হয়েছে তাই জন্যেই তো আমরা চুক্তিতে দেরি করেছিলাম। কংগ্রেস নেতার এই মন্তব্য নিয়ে রাজনৈতিক মহল ও সোশ্যাল মিডিয়ায় তোলপাড় শুরু হয়েছে। এন্তোনির মতে রাফেল না আসায় দেশের ভালো হয়েছে। রাফেল না আসায় পাকিস্থানের ভালো হয়েছে এটা সকলেই বুঝতে পারছে কিন্তু ভারতের কিভাবে এটাতে ভালো হয়েছে তার কোনো যুক্তি নেই উনার কাছে।

এ.কে এন্তোনি বলেছেন আমরা সবকিছু ঠিকঠাক করে চুক্তি করতাম। মোদী এসে সব নষ্ট করে দিচ্ছে। জানিয়ে দি, এ.কে এন্তোনি যখন দেশের সুরক্ষামন্ত্রী ছিলেন তখন মিডিয়া উনাকে জিজ্ঞাসা করতো যে সেনার জন্য দামী অস্ত্রশস্ত্র কেন ক্রয় করা হচ্ছে না! উত্তরে উনি বলতেন আমাদের সরকারি ফান্ডে অর্থ নেই, তাই সেনার কাছে যা আছে সেটা নিয়েই কাজ চালাক।

9 Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.