Press "Enter" to skip to content

বড় খবর – কোনো প্ল্যানিং ছাড়াই , হাজার হাজার বিজেপি সমর্থক জড়ো হয়ে দেখিয়ে দিলো বিজেপির ক্ষমতা ! Bengali News

পশ্চিম বাংলার বিজেপির তরফে হুগলির গুড়াপে এই মাসের প্রথম দিকে সভা করতে চাওয়া হয়েছিল। কিন্তু অনুমতি দেয়নি সেখানকার পুলিশ। পুলিশের তরফে জানানো হয়েছিল যে এখন এখানে তৃনমূল কংগ্রেসের একটা কর্মসূচি করার কথা রয়েছে। তাই এখন হবে না আপনারা পরে সভা করবেন। নেতা জানান যে, সেই হিসাব করে আমরা দিনও ঠিক করেছিলাম।

জয় ব্যানার্জী বলেন যে রাজ্য সরকারের নয় আমরা রেলের কাছে অনুমতি নিয়ে রেলের জায়গায় সভা করার জন্য ঠিক করি। তার জন্য আমাদের প্রস্তুতিও শুরু হয়ে যায় কিন্তু গতকাল রাতে আমাদের সব প্রস্তুতি বন্ধ করে দেওয়া হয় পুলিশ এর তরফে।

আজ বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ, বিজেপি নেতা মুকুল রায় এবং জয় বন্দোপাধ্যায় এই তিনজন ওবিসি মোর্চার একটি বৈঠকে উপস্থিত হন হুগলির জেলার ডানকুনিতে। সেখানেই বিজেপি নেতৃত্ব এই খবরটি পান এবং তারা সিদ্ধান্ত নেন যে, পুলিশ সুপারের অফিস ঘেরাও করবেন। সেই সিদ্ধান্তের মাত্র এক ঘন্টার মধ্যেই বিজেপি কর্মীরা বিক্ষোভ শুরু করে দেন।

বিজেপি নেতৃত্বের সেই বিক্ষোভ গিয়ে পৌছাঁয় হুগলির পুলিশ সুপারের অফিসের সম্মুখে। আগে থেকে কোনোরকম পরিকল্পনা ছাড়ায় হঠাৎ করে একসাথে এত লোকের(হাজার হাজার সমর্থক) উপস্থিতি বিজেপির নেতৃত্বকেই অবাক করে দেন। কোনো পরিকল্পনা না থাকার কারনে বিজেপি নেতারা ভাষন দেন একটি মিনি ট্রাকের উপর দাঁড়িয়ে কারন কোনো মঞ্চ সেখানে করা ছিল না। কিন্তু এত সংখ্যায় লোকের উপস্থিতি হবে এটা কেউই আন্দাজ করতে পারেনি।

এই দিন বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ চ্যালেঞ্জ করে বলেন যে, আমরা আমাদের সভা করবই, পুলিশ একবার আমাদের প্রস্তুতি নষ্ট করে দিয়েছেন, কিন্তু আমরা এবার সমস্তপ্রকার আইন মেনে আবার একবার সভার প্রস্তুতি শুরু করবো। পুলিশের কাছে অনুমতি চাইব যদি দেয় তাহলে খুবই ভালো আর যদি না দেন তাহলে আমরা এবার জোর করে সভা করব। তৃনমূল যদি ভেবে থাকে তাদের ক্ষমতার অপপ্রয়োগ করে তারা পুলিশ দিয়ে বারবার আমাদের সভা আটকে দেবে তাহলে সেটা ভুল ভাবছে। এবার আমরা শুধু হুগলির গুড়াপে সভা নয় বরং আমরা সারা রাজ্যেজুড়ে সভা করব এবং মানুষের কাছে তৃনমূলের গুণ্ডামির কথা তুলে ধরব। যদি কারুর ক্ষমতা থাকে তাহলে আমাদের আটকে দেখাক।
#অগ্নিপুত্র