২০২১ এ তৃণমূলের থেকে শাসন ক্ষমতা ছিনিয়ে নিতে ও লোকসভা নির্বাচনে রেকর্ড গড়তে বঙ্গ বিজেপির প্রস্তুতি শুরু।

লোকসভা ভোটকে কেন্দ্র করে পুরো দেশের রাজনৈতিক মহল এখন উত্তাল। সবাই তাদের নিজেদের ঘর গুছিয়ে নিতে শুরু করেছে। বসে নেই বঙ্গ বিজেপি। এবার আমাদের রাজ্যের বিজেপি তাদের প্রস্তুতি শুরু করে দিল। এবার দিলীপ ঘোষ শনিবার বৈঠকের ডাক দিলেন রাজ্যের বিজেপি শীর্ষ নেতৃত্বদের নিয়ে। লোকসভা ভোটে রাজ্যের রণকৌশল কেমন হবে সেই নিয়ে একটি আলোচনা সেরে নিলেন সেই বৈঠকে। সেখানে রাজ্যের শীর্ষ নেতৃত্ব ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন ৪২টি আসনের
দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতারা। আপনাদের জানিয়ে রাখি যে, এই সপ্তাহেই নরেন্দ্র মোদীজি, অমিত শাহ্‌ সহ বেশ কিছু বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতা মন্ত্রী বৈঠক করেন দেশের বিজেপি শাসিত রাজ্য গুলির মুখ্যমন্ত্রী ও উপমুখ্যমন্ত্রীদের সাথে। সেখানে তাদের কে ২০১৯ লোকসভা ভোট নিয়ে বিশেষ পরামর্শ দেওয়া হয় সেই সাথে একটা টার্গেট বেঁধে দেওয়া হয়েছে। যেহেতু বঙ্গবিজেপির কাছে ২০১৯ এর সাথে সাথে ২০২১ এ শাসন ক্ষমতা হাতে নেওয়ার একটা দায়িত্ব আছে তাই একটু বেশি সক্রিয় হয়ে কাজ করার সিদ্ধান্ত নিচ্ছেন তারা।

সূত্রে খবর, কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী অরুণ
জেটলি আগামী বছরে ফেব্রুয়ারি মাসে বাজেট পেশ করবেন। তারপরই ভোটের নির্ঘণ্ট ঘোষনা করে দেওয়া হবে নির্বাচন কমিশনের তরফে। মার্চ – এপ্রিল মাসে ভোট গ্রহন চলবে পুরো দেশ জুড়ে। দিলীপ – মুকুলরা মনে করছেন যে মার্চের শেষে দিক বেশ কয়েক দফায় ভোট গ্রহন হবে আমাদের রাজ্যে। মে মাসে ফল ঘোষনা করা হবে। সেই হিসাব ধরেই এগোতে চাইছে রাজ্যের বিজেপি শিবির।
এবার ভোটের প্রচারে বিজেপি আনতে চলেছে অভিনব উদ্ধোগ। ইতিমধ্যে রাজস্থানে তাদের মুখ্যমন্ত্রী বসুন্ধরা রাজে সিন্ধিয়া ভোট প্রচারের মাধ্যম হিসাবে রথযাত্রাকে বেঁছে নিয়েছেন। রথের সাহায্যে ভোট প্রচার করেছেন তার ফলে বেশ সাফল্য পেয়েছেন।

এবার সেই একই ভাবে ভোটের প্রচারে নামবেন রাজ্য বিজেপি। রাজ্য বিজেপি মনে করছেন যে এর ফলে মানুষের মনে তারা প্রভাব ফেলতে সক্ষম হবে। এছাড়াও নরেন্দ্র মোদী বেশ কয়েকটি সভা করবেন ব্রিগেডে আর সেই সব সভাতে অনেক লোকের সমাগম হবে বলেও মনে করছেন রাজ্য বিজেপি। শনিবারের বৈঠকে রাজ্যের মধ্যে জনসংযোগ বাড়ানোর দিকে জোর দিতে বলা হয়েছে বৈঠকে। রাজ্য বিজেপির তরফে জানানো হয়েছে যে, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর নানা সামাজিক প্রকল্প গুলি রাজ্যের মানুষের কাছে তুলে ধরা হবে রাজ্য বিজেপির তরফে। বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি ২০১৯ লোকসভা ভোটে পশ্চিমবঙ্গের বিজেপি নেতৃত্বকে বলে দিয়েছেন যে, এই রাজ্য থেকে ২২ টি সিট পেতে হবে। এমনি টার্গেট বেঁধে দিয়েছেন কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব। আর এই টার্গেটে চাপ থাকলেও এটাকেই চ্যালেঞ্জ হিসাবে নিয়েছেন রাজ্য গেরুয়া শিবির।

তাদের মতে ২২ টি সিট না পেলেও তার কাছাকাছি যদি থাকা যায় সেটাই তাদের বাড়তি আত্মবিশ্বাস জোগাবে বলে মনে করছেন তারা। কিন্তু অপর দিকে তৃনমূল তাদের প্রচার শুরু করে দিয়েছেন ইতিমধ্যে। এবার দেখার বিষয় কে কাকে টেক্কা দেয়। যদি বিজেপি ভালো রেজ্যাল্ট করতে পারে তাহলে ২০২১ শের আগে রাজ্যবাসীকে বার্তা দিতে পারবেন বিজেপি নেতারা। রাজনৈতিক মহলের মতে যদি ২০১৯ এর লোকসভা ভোটে বিজেপি যদি ভালো ফল করতে পারে তাহলে ২০২১ শের ভোটে বিজেপির রাজ্য দখলের কাজ একটু সহজ হয়ে যাবে। কিন্তু তৃনমূল বিজেপি কে একটুও জমি ছাড়তে রাজি নন। তাই ২০১৯ ভোটে রাজ্যে যে একটা বড়ো ফাইট হবে তৃনমূল ও বিজেপির মধ্যে তা বলাই বাহুল্য।

#অগ্নিপুত্র

you're currently offline

Open

Close