Press "Enter" to skip to content

মঞ্চে প্রধানমন্ত্রী মোদী ও মনমোহন সিং যখন মুখোমুখি হলেন, তখন যা ঘটল তা আপনাকে অবাক করবে।

ভারতের লোকতান্ত্রিক ব্যাবস্থা প্রত্যেক ভারতীয়র মাথা গর্ব করে উঁচু করে। ভারতের লোকতান্ত্রিক ব্যাবস্থা অন্য দেশের থেকে অনেকটাই আলাদা। প্রায় দেখা যায় আমাদের দেশের নেতাদের মধ্যে মতভেদ হচ্ছে এবং একে অপরের উপর আক্রমণ করছেন। কিন্তু দেশের নেতাদের মধ্যে কখনো মনভেদ হয় না। এটাই ভারতের সৌন্দর্য। রবিবার দিল্লিতে দেশের দুই বড়ো নেতার মধ্যে এমনকিছু দেখা গেল যা আপনাকেও অবাক করবে। জানিয়ে দি রবিবার দেশের ও পূর্ব মনমোহন সিং মুখমুখি হন। যেইমাত্র পুর্বপ্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং মঞ্চে আসেন সেইমাত্র নরেন্দ্র মোদী নিজেথেকে এগিয়ে গিয়ে উনাকে স্বাগত জানান। যারপর উনারা দুজন মঞ্চে একে অপরের পাশে বসেন। দুই বড়ো নেতা মুখোমুখি হওয়ার পর তাদের মুখে যে হাসি ছিল তা দেখবার মতো ছিল। সেই ছবি দেখার পর যে কোনো ভারতীয় মনে লোকতন্ত্রের জয় শব্দ উঠে আসবে।

২০১৪ সালে নরেন্দ্র মোদী প্রচুর সংখ্যায় রালি করেছিলেন এবং উনার উপর আক্রমণ করেছিলেন। যা ২০১৯ লোকসভা সামনে আসার সাথে সাথে আরো একবার শুরু হতে চলেছে। কিন্তু তারপরেও মঞ্চে দুই নেতা একে অপরকে দেখে খুশি প্রকাশ করেছেন যা ভারতীয় লোকতন্ত্রের সৌন্দর্যকে প্রদর্শন করে। এমনকি পূর্ব প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং অনেকবার রালিতে মোদীজির আলোচনা করেছেন। দিল্লিতে আয়োজিত এই কার্যক্রমে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী উপরাষ্ট্রপতি ভেঙ্কাই নাইডুর দারুনভাবে প্রশংসা করেন।

নরেন্দ্র মোদী বলেন, ভেঙ্কাইজি অনুশাসনের প্রতি খুবই আগ্রহী আর আজকাল আমাদের দেশে অনুশাসনকে অলোকতান্ত্রিক বলে দেওয়া খুবই সহজ ব্যাপার হয়ে উঠেছে। লোক এখন অনুশাসনকে কিছু অন্য নাম দেওয়ার জন্য শব্দকোষ খুলে বসছে। PM মোদী বলেন ভেঙ্কাইয়া নাইডুর এই পুস্তকে উনার উপরাষ্ট্রপতি জীবনের অভিজ্ঞতা ও অনুভবের সংকলন রয়েছে। একই সাথে উনি ১ বছরে দেশের প্রতি কি দায়িত্ব পালন করেছেন তার হিসেব দেশবাসীকে দিয়েছেন।

‘মুভিং অন মুভিং ফরওয়ার্ড’ নামক ওই ২৪৫ পৃষ্টার ওই পুস্তকে নিজের অনুভবের সাথে ২৭ টি রাজ্যের ৪৬৫ টি ছবি রেখেছেন যা উনি বিভিন্ন শিক্ষাকেন্দ্রে সফরের সময়ের। উল্লেখ্য, পূর্ব প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং, নাইডুর প্রশংসা করেন। মনমোহন সিং নাইডুর জন্য একটা সাইরি পড়েন। ভেঙ্কাইয়া নাইডু নিজের পুস্তকের লঞ্চ করার সময় বলেন, ভারতীয় সঙ্গস্কৃতি বিশ্বের সবথেকে উৎকৃষ্ট সঙ্গস্কৃতি। এটাকে বজায় রাখতে হবে। উনি বলেন আমাদের দেশের সঙ্গস্কৃতি সবার খেয়াল রাখার সংকেত প্রদান করে।