Press "Enter" to skip to content

বেরিয়ে এলো বড়ো তথ্য! এই কারণেই ভারতবন্ধের ডাক দিয়েছিল সোনিয়া ও রাহুল গান্ধী।

কংগ্রেস পেট্রোল, ডিজেলের নামে মোদী বিরোধী পার্টিগুলোকে এক করে ভারতবন্ধ করতে নেমে পড়েছিল। ভারতবন্ধের নামে কংগ্রেস ও অন্যান্য দলগুলি রাস্তায় নেমে উপদ্রব শুরু করেছিল যার জন্য ২ বছরের একটা বাচ্চার মৃত্যু ঘটে। তেলের দাম বৃদ্ধির প্রতিবাদের নামে কংগ্রেস ও বাকি দলগুলি একত্রিত হয়ে রাস্তায় উপদ্রব করে এবং ভাঙচুর চালায় ফলে বহু কোটি টাকার সম্পত্তি নষ্ট হয়। অন্যদিকে সন্ধে হতে হতে হাইকোর্ট, সোনিয়া ও রাহুলের জন্য সেই দুঃখজনক সেই খবর শুনিয়ে দেয় যার থেকে এরা বাঁচাবার চেষ্টা করেছিলেন। কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী ও UPA চেয়ারপারশন সোনিয়া গান্ধীকে আয়কর বিভাগের নোটিশ মামলায় দিল্লি হাইকোর্ট স্বস্তি দিতে অস্বীকার করে দেয়। জাস্টিস এস রবীন্দ্র ভাট ও জাস্টিস এ. কে চাউলার বেঞ্চ এটা জানিয়েছে। রাহুল গান্ধী, সোনিয়া গান্ধী ও অস্কার ফারনান্দিস এর কাছে এখন দুটি রাস্তা খোলা আছে। হয় হাইকোর্টের আদেশে এনারা আয়কর বিভাগের কাছে উপস্থিত হয়ে নিজেদের দলিল, তথ্য রাখুন অথবা অন্য রাস্তা সুপ্রিম কোর্টের দিকে যাচ্ছে যেখানে দিল্লি হাই কোর্টের আদেশেক চ্যালেঞ্জ করতে পারবে।

বিজেপি প্রবক্তা সম্বিত পাত্র হাইকোর্টের এই আদেশকে স্বাগত জানিয়ে বলেন, এটা দুর্নীতর বিরুদ্ধে মোদী সরকারের জিরো টলারেন্সের জয়। পাত্র বলেন, কংগ্রেস দ্বারা ডাকা ভারত বন্ধের আসল কারণ এটাই ছিল। কারণ উনারা জানতেন যে হাইকোর্টের নির্ণয় উনাদের বিরুদ্ধেই আসবে। বিজেপি নেতা সুভ্রমনিয়াম স্বামী আদালতে আর্জি দাখিল করে অভিযোগ করেছিল যে সোনিয়া গান্ধী ও রাহুল গান্ধী লোন দেওয়ার নাম করে ন্যাশনাল হেরাল্ড এর ২০০০ কোটি টাকার সম্পত্তি জপ্ত করে নিয়েছে। উল্লেখ, এই মামলা ২০১১-১২ এর যখন রাহুল গান্ধী, সোনিয়া গান্ধী এবং অস্কার ফারনান্দিস আয়কর রিটার্ন ফাইল করেছিল। কিন্তু ২০১৮ আয়কর বিভাগ দ্বারা এই রিটার্নের যাচাই করার আবার নোটিশ চলে এলো।

বিভাগের দাবি এই তিনজন ন্যাশনাল হেরাল্ডের ট্রাস্টের হাতে টেক ওভারের উল্লেখ নিজেদের আয়কর ফাইলে করেনি। আয়কর বিভাগের এই নোটিশকে রাহুল গান্ধী, সোনিয়া গান্ধী ও অস্কার ফারনানডিস এর তরফে চ্যালেঞ্জ করা হয়েছিল। এনাদের দাবি ছিল নবজীবন একটা চ্যারিটেবল ট্রাস্ট যা নো প্রফিট নো লসে আধারিত তাই এটার উল্লেখ করা প্রয়োজন ছিল না। কিন্তু আয়কর বিভাগ এই ট্রানজেক্টশনকে এই দৃষ্টিতে দেখছে না।

এই তিনজন আরো দাবি করেছে যে আয়কর বিভাগ ৬ বছর ধরে কোনো সুদ নেয়নি, ৬ বছর পূর্ন হওয়ার একদিন আগে নোটিশ পাঠিয়েছে যেখনে প্রক্রিয়া সম্পর্কিত সমস্যা রয়েছে। কোর্ট সাফ জানিয়েছে, এই সমস্ত বাহানা এখন আয়কর বিভাগের সামনেই চলবে।জানিয়ে দি ন্যাশনাল হেরাল্ডের অপরাধীর মামলা দিল্লির জেলা আদালত পাতিয়ালা হাউসে চলছে যেখানে রাহুল ও সোনিয়া গান্ধী জামানতে রয়েছেন। রাহুল গান্ধী ও সোনিয়া গান্ধী এই মামলা থেকে এড়িয়ে যাওয়ার জন্যই ভারতবন্ধ ডেকে ছিল যাতে কিছুটা সফলও হয়েছে তারা। আসলে দেশের দালাল মিডিয়া ভারতবন্ধের নিয়ে তোলপাড় করলেও এই নিউজ সম্পুর্নভাবে এড়িয়ে গেছে যাতে কংগ্রেসের ভোটব্যাঙ্ক কিছুটা হলেও রক্ষা পেয়েছে।