Press "Enter" to skip to content

অমৃতসর ট্রেন দুর্ঘটনা: এই কারণেই দাঁড়ায়নি ট্রেন, রেলওয়ে বিভাগ দিলো সমস্থ প্রশ্নের উত্তর।

রেল দুর্ঘটনার পর থেকে রেলওয়ে ও স্থানীয় প্রশাসনের উপর অনেক প্রশ্ন উঠছিল। যারমধ্যে সবথেকে বড় প্রশ্ন ছিল যে ট্রেন কেন থামানো হয়নি? ট্রেন কেন ধীরে করা হয়নি? রেলওয়ে বিভাগ আয়োজিত কার্যকর্মের ব্যাপারে জানতো কিনা? এই সমস্থ প্রশ্নের জবাব ক্রমানুসারে ফিরোজপুরের DRM বিবেক কুমার দিয়েছেন। সর্বপ্রথম ট্রেনের গতি নিয়ে মুখ খোলেন বিবেক কুমার। উনি বলেন খুব অন্ধকারছন্ন ছিল এবং ঘটনাস্থলে মোড়ক রয়েছে, ট্রেনের আলো সোজাসুজি যায় কিন্তু লোকজন ছিল ট্রাকের উপরে। ট্রেনে লাগানো রেকডিং স্পীড থেকে জানা গেছে যে যখন ড্রাইভার ট্রাকের উপর লোকজন দেখেন তখন উনি স্পীড কম করেন সেই সময় স্পীড ৯২ কিমি/ঘন্টা থেকে ৬৮ কিমি/ঘন্টা করে নেওয়া হয়েছিল। এমন অবস্থায় ট্রেনকে সম্পূর্ণভাবে থামাতে ৭০০ মিটারের প্রয়োজন হয় বলে জানান তিনি।

আরো পড়ুন – বড় খবর- আজ থেকে বদলে গেল ইতিহাস! প্রাপ্ত সন্মান ফিরে পেলেন নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসু

দুর্ঘটনার পর ট্রেন থামানো হয়েছিল- ট্রেনের স্পীড কম হওয়ার পর গতি ৭-১০ কিমি/ ঘন্টা হয়ে গেছিলল কিন্তু গার্ড জানায় যে লোকজন পাথর ছুঁড়তে আরম্ভ করেছে তাই যাত্রীদের সুরক্ষা নিশ্চিত করতে ট্রেনকে থামানো হয়নি। ট্রেনকে দুর্ঘটনাস্থলে থামানো কোনোভাবেই সঠিক কাজ হতো না তাই, সেখানে না থামিয়ে অমৃতসরে থামানো হয়েছিল।

কার্যক্রমের ব্যাপারে জানাছিলো কিনা এই নিয়ে উত্তর দিতে গিয়ে বিবেক কুমার বলেন, আমরা কার্যক্রমের ব্যাপারে কিছুই জানতাম না, কেউ আমাদেরকে এই ব্যাপারে সূচনা দেয়নি। আমাদেরকে এটাও বলা হয়নি যে ট্রেন ওই স্থানে ধীর গতিতে নিয়ে যেতে হবে।

মৃতদের ব্যাপারে উনি বলেন, এই ব্যাপারে রেলওয়ে দায়ী নয়, আর কে দায়ী সেটা আমি বলতে পারবো না। দুর্ঘটনা রেলের মধ্যে বিভাগে হয়েছে , রেল স্টাফরা সমস্থ জায়গায় উপস্থিত থাকতে পারবে না। আমাদের স্টাফ গেট অথবা স্টেশনে থাকে আর সেখানে কিছু খবর থাকলে আমরা জানতে পারি। এই দুর্ঘটনা গেট থেকে দূরে, গেটম্যান এর ক্ষেত্রের বাইরে হয়েছে।

এক আধিকারিক বলেন এই মামলায় কোনো সিআরএস তদন্ত হবে না। বিবেক কুমার বলেন এই ঘটনা পরে যাতে না হয় তার জন্য জনগণকেই সচেতন হতে হবে। রেলওয়ে ট্রাকের উপর কোনোভাবেই দাঁড়িয়ে থাকা উচিত নয়। উনি বলেন স্টেশনেও অনেক লোকজন উপর ওভার ব্রিজ দিয়ে না পার হয়ে রেল ট্রাকে পা দিয়ে পেরোই যেটা অন্যায় এবং বিপদজনক।