Press "Enter" to skip to content

মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যানাথ ভোরে উঠে কাজে কেন লেগে পড়েন! এর যোগ্য উত্তর দিলেন তিনি নিজেই।

২০১৪ সালে বিজেপির জিতে যাবার পর আমাদের দেশের রাজনীতিতে সবচেয়ে প্রভাবশালী নেতা হলেন নরেন্দ্রমোদী। তিনি জনপ্রিয়তার দিক সবার আগে রয়েছেন। তবে তার ঠিক পরে যদি কেউ থেকে থাকে তবে তিনি হলেন উত্তরপ্রদেশের বর্তমান মুখ্যমন্ত্রী ী আদিত্যনাথ জি। যোগীজিকে দেশের জনপ্রিয় নেতার দিক দিয়ে ২য় স্থানে নিয়ে যাবার পিছনে শুধু মাত্র যে তার হিন্দুত্ববাদী মনভাব রয়েছে তা নয় বরং তার এমন কিছু গুন রয়েছে যার কারনেই তিনি আজকে দেশের মধ্যে এত জনপ্রিয়তা লাভ করেছেন। আসলে আদিত্যনাথ খুবই স্পষ্টবাদী ও রাষ্ট্রবাদী। সম্প্রতি যোগী আদিত্যনাথের বিরুদ্ধে একটা অভিযাগ উঠেছে সেই অভিযোগ করেছেন সরকারের বিউউক্রেসির লোকজন যারা রাজ্যের উপরস্তরীয় কাজ করেন।

অভিযোগটি হল উত্তরপ্রদেশের উন্নয়ন সংক্রান্ত কোনো মিটিং হলে যোগীজি খুব সকাল সকাল সেই মিটিং শুরু করে দেন। এবং সেটি চলতে থাকে রাত ১২টা বা ১ টা পর্যন্ত। আর বর্তমানে এই বৈঠক নিত্য ঘটনা হয়ে দাঁড়িয়েছে যাতে সমস্যাই পড়ছেন বিউউক্রেসির লোকজনেরা। মুখ্যমন্ত্রী যোগি আদিত্যনাথকে এই সংক্রান্ত বিষয়ে প্রশ্ন করার জন্য ইন্টারভিউ নেন দেশের মিডিয়া। দেশের এক বড়ো নিউজ চ্যানেলে উনাকে প্রশ্ন করা হয় যে, আপনার উপর অভিযোগ উঠছে যে আপনি অনেক সকাল সকাল কাজ শুরু করে দেন এবং রাত অব্দি কাজ করেন।

এব্যাপারে আপনি কি বলবেন? সেই প্রশ্নের উত্তরে যোগীজি বলেন, দেখুন রাজ্যের উন্নয়নকাজ সকাল সকাল শুরু করাটা আমাদের সকলের দায়িত্বভার। তাই আমি রোজ খুব ভোরে উঠেই কাজ শুরু করে দিই। আমি যখন গোরক্ষপুরে থাকতাম তখন আমার নিজস্ব গোশালা ছিল ও মন্দির ছিল। তাই সেই গুলির পরিষ্কার পরিছন্ন রাখার দায়িত্ব আমার ছিল। তাই অনেক ভোর বেলায় উঠে আমি কাজ শুরু করে দিতাম। কিন্তু এখন কোনো গোশালা নেই আর সেই রকম মন্দিরও নেই।

তাই স্বাভাবিকভাবে পুরো উত্তরপ্রদেশ কে যদি মন্দির মনে করে কাজ করতে হয় ও পুরো রাজ্যকে যদি পবিত্রস্থানে পরিনত করতে হয় তাহলে আমাকে অনেক সময় দিতে হবে এবং সকাল সকাল কাজ শুরু করে দিতে হবে। আর সেই কাজটিই আমি এবং আমার পুরো টিম করছি এবং ভবিষ্যৎ এও করব। পার্টি আমাকে দায়িত্ব দিয়ে যে গুরুত্বপূর্ণ সময় দিয়েছেন দেশের সেবা করার জন্য আমি সেই সময়ের পুরোটাই ভালো কাজে ব্যাবহার করব।
#অগ্নিপুত্র