Press "Enter" to skip to content

নেতাজি ও সাভারকার এদেশের দেবতা, গান্ধী সব সমস্যার মূল: নরসিংহানন্দ স্বরস্বতী, হিন্দু ধর্মগুরু।

ভারতীয় রাজনীতিতে গান্ধী, নেহেরু, গডসে, সাভারকারকে নিয়ে বিতর্ক দশকের পর দশক ধরে চলছে। অনেকে দাবি করে গান্ধীকে ইংরেজরা আফ্রিকা থেকে ভারতে এনেছিল শুধুমাত্র ভারতের আন্দোলনগুলিকে নিজের হাতে রাখার জন্য। গান্ধীজি যত আন্দোলন শুরু করতেন প্রত্যেকটি মাঝপথে শেষ হয়ে যেত। এর কারণের পেছনেও গান্ধী ও ইংরেজদের হাত মেলানোকে দাবি করা হয়। অন্যদিকে আরেক দল গান্ধীকে অহিংসাবাদী দেশপ্রেমিক মনে করেন। তবে এখন ভারতীয় রাজনীতিতে বীর সভারকারকে নিয়ে চর্চা শুরু হয়েছে। আসল কেন্দ্র সরকার সভারকারকে ভারতরত্ন দেওয়ার ঘোষণা করেছে। এরপর থেকে এ নিয়ে বির্তক চরমে পৌঁছে গেছে।

নেতাজি ও সাভারকার

কংগ্রেসের নেতারা বীর সভারকারকে ভারত রত্ন দেওয়ার বিরোধে নেমে পড়েছেন। অথচ ইন্দ্রিরা গান্ধী পর্যন্ত সাভারকারের প্রতি শ্রদ্ধা রাখতেন। তবে গান্ধী ও বীর সভারকারকে নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করেছেন উত্তরপ্রদেশের বিখ্যাত সন্ন্যাসী নরসিংহানন্দ স্বরস্বতী। গান্ধীকে দেশের সমস্থ সমস্যার কারণ বলে দাবি করেছেন নরসিংহানন্দ স্বরস্বতী। অন্যদিকে নেতাজি ও সভারকারকে দেশের দেবতা বলে উল্লেখ করেছেন। এক টিভি ডিবেটে নরসিংহানন্দ স্বরস্বতী বলেন আজ দেশে যত সমস্যা রয়েছে তার জনক নেহেরু ও গান্ধী।

নরসিংহানন্দ স্বরস্বতী বলেন, সভারকার একমাত্র ব্যাক্তি ছিলেন যিনি নেহেরু ও গান্ধীর বিশ্বাসঘাতকতাকে বুঝতে পেরেছিলেন। উনি বলেন, দেশ ভাগের পর পাকিস্তান, বাংলাদেশ ইসলামিক দেশ হলো কিন্তু ভারত হিন্দু রাষ্ট্র হতে পারেনি এই কারণ নেহেরু ও গান্ধী। গডসেকেও ভারত রত্ন দেওয়া উচিত বলে মন্তব্য করেন নরসিংহানন্দ স্বরস্বতী। একইসাথে দেশে হিন্দুদের ব্যাপকহারে হত্যার জননেও গান্ধীকে দায়ী করেন নরসিংহানন্দ স্বরস্বতী। জানিয়ে দি, নরসিংহানন্দ স্বরস্বতী স্বাধীনতা সংগ্রামী পরিবার থেকে আসেন। তাই প্রায় সময় ইতিহাস বিষয়ক ব্যাপারে খোলাখুলি মন্তব্য করে থাকেন।