Press "Enter" to skip to content

পাকিস্তানি জঙ্গিদের খতম করার জন্য উত্তর কাশ্মীরে সবথেকে বড় অপারেশন চালাচ্ছে ভারতীয় সেনা

উত্তরি কম্যান্ড ২৮ সেপ্টেম্বর দুপুরে একটি ট্যুইট করেছিল, সেটাতে লেখা ছিল অপারেশন গন্দারবল সফল হয়েছে, এক জঙ্গি মারা গেছে। হাতিয়ার আর যুদ্ধের সামগ্রী উদ্ধার করা হয়েছে। জয়েন্ট অপারেশন এখনো জারি।

সুত্র অনুযায়ী, ভারতীয় সেনার জওয়ানেরা গান্দরবল এর ত্রুমখাল জঙ্গলে একদিন আগেই কয়েকজন জঙ্গিদের দেখেছে। সুত্র অনুযায়ী, যখন তাঁদের স্যারেন্ডার হওয়ার কথা বলে হয়েছে, তখন জঙ্গিরা সেনার উপর গুলি চালানো শুরু করে দেয়। ভারতীয় সেনার পালটা আক্রমণ চালিয়ে এক জঙ্গি খতম করে।

প্রশাসনের তরফ থেকে ২৯ সেপ্টেম্বর সাব ডিস্ট্রিক্ট ট্রমা হাসপাতালে ডাক্তারদের একটি দলকে ওই জঙ্গির পোস্ট মর্টেম করার জন্য ডাকা হয়। ওই টিমকে অটো স্পাই করার জন্য অনেক ঘণ্টা ট্রেকিং করে যেতে হয়েছি। তিনদিন পড়ে, সেনার আর জঙ্গিদের মধ্যে আবারও সংঘর্ষ শুরু হয়। নর্দার্ন আর্মি কম্যান্ড ১লা অক্টোবর আরেকটি ট্যুইট করে লেখে, গন্দারবলে দ্বিতীয় জঙ্গি খতম, হাতিয়ার আর যুদ্ধের সামগ্রী উদ্ধার করা হয়েছে। মোট সংখ্যা দুই।

সুত্র থেকে জানা যায় যে, দুই জঙ্গির থেকে তিনটি অটোমেটিক রাইফেল উদ্ধার হয়েছে। ভারতীয় সেনা জানিয়েছে যে, দুই জঙ্গিই পাকিস্তানি। তখন থেকে আজ পর্যন্ত ১৯ দিন অপারেশন চালিয়েছে সেনা। প্রথম দিনের পর থেকে ভারতীয় সেনা গান্দরবলের জঙ্গলে অপারেশন আরও দ্রুত করে দিয়েছে। আর এরপর থেকে বিগত এক বছরে কাশ্মীরে সবথেকে বড় আর দীর্ঘ অপারেশন হয়ে উঠেছে এটি।

প্রসঙ্গত, ২৭ সেপ্টেম্বর ভারতীয় সেনা কাশ্মীরে জঙ্গলে ঢুকে কোন অপারেশন চালায়নি। কিন্তু এখন ভারতীয় সেনা নিজেদের এলিট ফোর্সের সাথে সমস্ত গ্রুপকে এক করে জঙ্গলে বড়সড় অভিযান চালাচ্ছে। গোপন সুত্র অনুযায়ী, ওই জঙ্গলে কমপক্ষে এক ডজন জঙ্গি অত্যাধুনিক হাতিয়ার নিয়ে লুকিয়ে আছে।