Press "Enter" to skip to content

যোগী আদিত্যানাথ জারি করলেন শেষ সতর্কবার্তা! উত্তরপ্রদেশে এবার চলবে না ফতোয়াবাজি।

সম্পূর্নভাবে অবৈধ হয়। কারণ এক প্রকারের ধমকি দেওয়া বা হুমকি দেওয়া হয়।আর ভারতের আইন অনুযায়ী আপনি কাউকে ধমকি দিতে পারবেন না এটা একটা অপরাধ। কিন্তু ভারতে এইরকম নোংরা ধর্মনিরপেক্ষতা চলে যেখানে কট্টরপন্থীদের হুমকি বা ধমকিকে ধর্মীয় অধিকার মেনে নেওয়া হয়। প্রায় শোনা যায়, কারোর মাথা কেটে নেওয়ার ,কাউকে মারার জন্য । কিন্তু এইসবের উপর কোনো আইনি পদক্ষেপ নেওয়া হয় না, বরং সকল ফতোয়াকে ধর্মীয় অধিকার বলে মিডিয়ার মাধ্যমেও প্রচার করা হয়। এই সমস্ত ফতোয়ার বেশিরভাগই দারুল উলুম ডেভবন্দ এর মতো জায়গা থেকে দেওয়া হয়। কিন্তু এখন শেষপর্যন্ত আদিত্যানাথ বন্ধ করার জন্য ফতোয়াবাজদের শেষ সতর্ক করে দিয়েছেন।

যোগী প্রশাসনের সাফ বক্তব্য দেশে আইন আর সংবিধান চলবে, কোনো সারিয়া বা কোরানের নিয়ম চলবে না। মুখ্যমন্ত্রী স্পষ্ট কথায় বলেন, ভারত এমন কোনো দেশ নয় যা ফতোয়া দ্বারা সঞ্চালিত হবে। বলেন, দেশের মহাপুরুষরা সংবিধান দিয়ে গেছেন আর সেটার দ্বারা দেশকে সঞ্চালন করার প্রয়োজন আছে। নিজেদের সুরক্ষা চাইলে ভারতের সুরক্ষার কথা চিন্তা করতে হবে, নিজেদের সমৃদ্ধি চাইলে ভারতকে সমৃদ্ধ করার কথা চিন্তা করতে হবে।

যোগী আদিত্যানাথ গোরক্ষনাথ মন্দিরে এক শ্রদ্ধাঞ্জলি সভা সম্বোধিত করার পর এই মন্তব্যগুলি করেন। জানিয়ে দি যোগী আদিত্যানাথ এমন একজন নেতা যিনি একশন নেওয়ার উপর খুব বিশ্বাসী। ের ফতোয়াবাজরা যদি এবার না শোধরায় তাহলে যোগী কিভাবে কানুনের ডান্ডা চালায় সেটা ভবিষ্যতে দেখতেই পাওয়া যাবে।

এর আগে যোগী আদিত্যানাথ প্রদেশের গুন্ডাদের সতর্ক করে বলেছিলেন , হয় তারা উত্তরপ্রদেশের ছেড়ে দিক নতুন প্রশাসন তাদের উপরে পাঠিয়ে দেবে। যোগী তার বক্তব্য মতো কাজও করেছেন উত্তরপ্রদেশে হওয়া এনকাউন্টার তার প্রমান। যোগী কথা কম বলেন এবং একশন বেশি নেন আর এখম যোগী আদিত্যানাথ আরো একবার ফতোয়াবাজদের ওয়ার্নিং দিয়েছেন।