Press "Enter" to skip to content

খোলা মাঠে, পার্কে বা রাস্তায় নামাজ পড়ার উপর কড়া নিষেধাজ্ঞা যোগী সরকারের! নির্দেশ অমান্য করলে ঢোকানো হবে জেলে।

খোলা মাঠে, রাস্তায় পড়ার আড়ালে ে ‘ল্যান্ড জিহাদ’ বা ‘জমি জিহাদ’ করার অভিযোগ বরাবরই তুলেছে দেশের হিন্দুত্ববাদী ও রাষ্ট্রবাদী সংগঠনগুলি। কিন্তু ের কোনো সরকার এই নিয়ে পদক্ষেপ নেয়নি। তবে এখন ে যোগী সরকার আসার পর থেকে ধর্মের নামে গোঁড়ামি ও কট্টরতার বিরুদ্ধে অভিযান শুরু হয়ে গিয়েছে। সম্প্রতি ের সরকার খোলা মাঠে নামাজ পড়া নিয়ে বড়ো পদক্ষেপ নিয়েছেন। দিল্লী লাগোয়া নয়ডা শহরে খোলা নামাজ পড়ার উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছেন যোগী প্রশাসন।

যোগী পুলিশের তরফ থেকে জারি নির্দেশিকায় বলা হয়েছে, খোলা মাঠে বা রাস্তায় কোনোভাবেই নামাজ পড়া যাবে না। যদি কোনো ব্যক্তি এই নির্দেশের অমান্য করে তবে তার বিরুদ্ধে প্রশাসনিক পদক্ষেপ নেওয়া হুঁশিয়ারি দেওয়া হয়েছে। হরিয়ানার গুরগাঁও এলাকার একটা খোলা মাঠে নামাজ পড়া নিয়ে সাম্প্রদায়িক উত্তেজনা সৃষ্টি হয়েছিল। উত্তরপ্রদেশে যাতে কোনোভাবেই এমন পরিস্থিতি না হয় তার দিকে খেয়াল রেখে যোগী প্রশাসন এমন পদক্ষেপ নিয়েছে।

হিন্দু সংগঠনগুলি দাবি করে থাকে যে, পার্কে, খোলা জায়গায় নামাজ পড়ার নামে ধীরে ধীরে স্থানকে কবজা নেয় ইসলাম ধর্মাবলম্বীরা। অনেকের মতে, সরকার সংগঠনগুলির দাবিকে মাথায় রেখেই খোলা জায়গায় বা পার্কে নামাজ পড়ার উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে।সূত্রের খবর, নয়ডায় খোলা পার্কে নামাজ পড়া, রাস্তায় নামাজ পড়ার মতো ঘটনা হটাৎ করে বেড়েই চলছিল।

বিশেষ করে সেক্টর-৫৮ এলাকার একটা পার্কে লাগাতার মুসিলমরা নামাজ পড়ার জন্য একত্রিত হচ্ছিল। রাষ্ট্রবাদীরা এই ঘটনার প্রতিবাদ করার পরেও কোনো ফল হয়নি, যারপর ঘটনা সরকারের কাছে পৌঁছে যায়। সরকারের নির্দেশ মতো স্থানীয় পুলিশ পার্কে নামাজ পড়ার উপর প্রতিবন্ধ লাগিয়েছে। প্রসঙ্গত, কিছুমাস আগে লখনউ এর সড়কে এক ব্যাক্তি জোর করে নামাজ পড়া আরম্ভ করেছিল যারপর যোগী পুলিশ ওই ব্যক্তিকে ধার্মিক উন্মাদনা দেখানোর অপরাধে ও মানুষের অসুবিধা সৃষ্টির অপরাধে গেপ্তার করে।

Be First to Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.