Press "Enter" to skip to content

রাজধর্ম পালন করছেন যোগী: হিন্দু ধর্মের বিরুদ্ধে প্রচার চালানো শক্তিগুলোকে উপড়ে ফেলছে যোগী সরকার।

আসল রাজধর্ম উত্তরপ্রদেশে শুরু হয়েছে। প্রদেশে ধর্মান্তরণ করা বিরোধীদের ব্যাক্তিদের লাগাতার ঝটকা দেওয়ার কাজ শুরু হয়েছে। যারা হিন্দুদের বিরুদ্ধে দুর্ভাবনাগ্রস্থ হয়ে গরিব হিন্দুদের লোভ দেখিয়ে ধর্মান্তরণ করছে অথবা জোর করে ধর্ম পরিবর্তন করার কাজে সংগলিপ্ত রয়েছে তাদেরকে কানুন, সরকার ও জনগণ এক হয়ে ঝটকা দিতে শুরু করেছে। এই মামলায় কিছুদিন আগেই ফাইজাবাদ জেলা থেকে একজন খ্রিষ্টান ধর্মপ্রচারক গেপ্তার হয়েছে। যারপর জৌনপুরেও এই ধরণের ঘটনা সামনে এসেছে। যোগী রাজ্যে বুধবার দিন উত্তরপ্রদেশে পুলিশের হাতে গ্রেফতার হয়েছে মোট ২৭১ জন যুবক। এরা সাধারন মানুষ কে হিন্দুধর্মের ব্যাপারে ভুলভাল বুঝিয়ে ভ্রান্তি সৃস্টি করার চেষ্টা করছিল এবং তারা সাধারণ মানুষ কে ভুল বুঝিয়ে খ্রিস্টধর্ম গ্রহণের জন্য ইন্ধন দিচ্ছিল।

এএসপি অনিল কুমার পান্ডে জানান যে, তার থানায় অর্থাৎ চান্দওয়াক থানায় বুধবার এই ব্যাপারে এফআরআর দায়ের করা হয়েছে। সেইসব অভিযুক্তের বিরুদ্ধে অভিযোগ তারা ধর্মস্থান অপবিত্র করা, প্রতারণা, জাতীয় সংহতির ক্ষতি করার অভিযোগ রয়েছে। এরা প্রত্যেকেই হিন্দুবিরোধেও গতিবিধি চালাতো এবং হিন্দুদের ধর্ম পরিবর্তন করার কাজ করতো। এফআইআরে কিরিট রাই, জিতেন্দ্র রামোনে, দূর্গাপ্রসাদ যাদব নামে যে তিন জনের নাম রয়েছে তারা সকলেই জৌনপুরের বাসিন্দা।

হিন্দু জাগরণ মঞ্চের একজন কর্মী আবেদন করেছিলেন সেই আবেদনের উপর ভিত্তি করেই সেখানকার এক স্থানীয় আদালতের নির্দেশ মেনেই মামলাটি দায়ের করা হয়েছে। অভিযুক্তরা গত কয়েক বছর ধরেই বারাণসী, গাজিপুর, জৌনপুর, আজমগড়ে বাসিন্দাদের বালদেহ গ্রামে অবস্থিত একটি গির্জায় গিয়ে সেখানকার খ্রিষ্টীয় ধর্মালম্বনীদের সাথে প্রার্থনায় অংশগ্রহণ করার জন্য বোঝাচ্ছিলেন, এছাড়াও হিন্দুধর্ম নিয়ে মিথ্যাচরণ করে তাদেরকে জোর করছিলেন খ্রিস্টান ধর্ম গ্রহন করার জন্য এমনটাই অভিযোগ করেন আবেদনকারীর কৌঁসুলি ব্রিজেশ সিংহ।

এছাড়াও তাদের বিরুদ্ধে আরও গুরুতর অভিযোগ যে, তারা গির্জায় নিয়ে গিয়ে হিন্দুধর্মের লোকেদের মাদক জাতীয় খাইয়ে নেশাগ্রস্ত করে বলপূর্বক ধর্ম পরিবর্তন করিয়ে নিয়েছেন। ২ ই অগাস্ট ব্রিজেশ সিংহ এই ব্যাপারে এফআইএর দায়ের করার জন্য আদালতে মামলা করেন। ৩১ ই অগাস্ট আদালত তার আবেদনে সাড়া দিয়ে এফআইআর দায়ের ও তদন্ত করতে নির্দেশ দেয় পুলিশ কে। এই ঘটনার পর ধর্মপরিবর্তনের সাথে জড়িত সমস্থ খ্রিষ্টান মিশনারিগুলি নিজেদের বাঁচানোর জন্য বাহানা প্রস্তুত করতে শুরু করেছে। কারণ হিন্দু বিরোধী এই মিশনারিগুলোকে(যারা সাহায্যে আড়ালে গরিব হিন্দুদের ধর্মপরিবর্তন করাই) মুছে ফেলার উপক্রম করে ফেলেছে।

#অগ্নিপুত্র

4 Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.