Press "Enter" to skip to content

বারাণসী হয়ে যাওয়ার সময় যোগী আদিত্যানাথের রাস্তায় দেখা গেল আবর্জনার স্তূপ! এর পর যোগীজি যা করলেন জানলে..

উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ যে শহরেই যান সেখানের উন্নয়নমূলক কাজকর্ম ও মানুষের চাহিদা এবং প্রশাসনের উপর বিশেষ নজর রাখেন। যোগী আদিত্যনাথের এই আন্দাজের জন্য উপরমহলের সরকারি আধিকারিকরা চিন্তায় থাকেন যে কখন যোগিজির চোখে ভুল ধরা পড়ে যাবে এবং চাকরি নিয়ে টানাটানি শুরু হয়ে যাবে। একথা নিজেরাই স্বীকার করেছে উপরমহলের সরকারি কর্মচারী এমনকি যোগীর মন্ত্রীরাও। সম্প্রতি যোগী আদিত্যনাথ বারাণসী গিয়েছিলেন এবং সেখানে উনি নির্মাধীন ডিমাপুর নিকাশি ট্রিটমেন্ট প্রণালীর ধীরগতিতে কাজ চলা দেখে আধিকারিকদের বকা দেন।

এছাড়াও উনি গঙ্গা দূষণ নিয়ন্ত্রণের প্রযোজনা প্রবন্ধককে কড়া ভাষায় ধমকি দেন এবং সেই সাথে কোম্পানির বিরূদ্ধে প্রাথমিকি দায়ের করার নির্দেশ দেন। এছাড়াও বড় নালী সাফাইয়ের কাজে বার বার সময় বেড়ে যাওয়ার জন্য শ্রীরাম ইওপিওসিও এর বিরুদ্ধে তদন্তের অভিযোগ দায়ের করার নির্দেশ দেন। এরপর যখন যোগী আদিত্যনাথ পুলিশ হাউস থেকে সার্কিট হাউসের দিকে আসছিলেন তখন উনার নজর আবর্জনার স্তুপের উপর পড়ে যা দেখার পর যোগী আদিত্যনাথ রেগে লাল হয়ে উঠেন।

তৎপর উনি নগর নিগমের আধিকারিকদের জোর ধমক দেওয়ার পর যুদ্ধস্তরে সফায়ের কাজ চালানোর নির্দেশ দেন এবং এই সাফাই অভিযানের উপর নজর রাখার জন্য একটা কিমিটি গঠন করারও নির্দেশ দেন। আপনাদের জানিয়ে রাখি, প্ৰধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী দেশকে পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন করার জন্য সাফাই অভিযানের ডাক দিয়েছিলেন যার পর দেশের শহরগুলিতে সাফাই কাজের উপর জোর দেওয়ার জন্য প্রশাসনকে চাপ দেওয়া হয়েছে।

আপনাদের জানিয়ে দি, যোগী আদিত্যনাথ উটোরপ্রদেশ পৌঁছে বহু বিভাগীয় আধিকারিকদের সাথে আলোচনা করেন এবং কিছু কাজে দ্রুত তদন্তের নির্দেশ দেন। এর আগের উনি বিখ্যাত মহাদেবের মন্দিরে যান এবং বৈঠকের পর কাশির বিশ্বনাথ মন্দিরের দর্শন ও পুজো করেন। যোগী আদিত্যনাথ উত্তরপ্রদেশকে উত্তমপ্রদেশ করার জন্য যেভাবে পরিশ্রম করছেন তাতে এটা নিশ্চিত যে যোগীজির হাত ধরে আগতদিনে উত্তরপ্রদেশ নতুন উচ্চতায় পৌঁছাবে।