Press "Enter" to skip to content

“অযোধ্যা নিয়ে ধর্য্য রাখুন, দিপাবলীতে সুখবর দেব”- যোগী আদিত্যনাথ।

২৯ শে অক্টোবর সুপ্রিম কোর্টে রঞ্জন গগৈ এর নেতৃত্বাধীন বেঞ্চ কোটি কোটি হিন্দুর আস্থার বিষয়কে তীব্র ঝটকা দিয়ে এখন শুনানি না করার কথা জানিয়ে দিয়েছেন। বিচারপতি মাত্র ৩ মিনিটে রামমন্দির ইস্যুকে ৩ মাসের জন্য পিছিয়ে দিয়েছেন। যা নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় তীব্র সমালোচনার ঝড় উঠেছে। বিচারপতিরা আতঙ্কবাদীদের জন্য রাত দুটোই আদালতের দরজা খুলে দেয় কিন্তু হিন্দুদের জন্য সময় দেয় না, এই রকম বড়ো অভিযোগ অনেকে সোশ্যাল মিডিয়ায় তুলেছেন। এই পরিস্থিতিতে রামমন্দির নির্মাণ নিয়ে সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতিদের উপর ভরসা অনেকটাই হারিয়ে ফেলেছে হিন্দুরা। হিন্দুদের এখন ভরসা বলতে কেন্দ্র সরকার এবং যোগী আদিত্যানাথ । কেন্দ্র সরকার অধ্যাদেশ আনবে কিনা সেই নিয়ে অনেক সংশয় রয়েছে কারণ শীতকালীন অধিবেশনে এমনিতেই সরকার চাপে থাকবে।

তাই হিন্দুদের শেষ ভরসা হতে পারেন যোগী আদিত্যানাথ, যিনি রাজনীতিতে এসেছেন ধর্মের জন্যেই। জানিয়ে দি যোগী আদিত্যানাথের জীবনের লক্ষের মধ্যে একটা রামমন্দির নির্মাণ। যোগী আদিত্যানাথ রামমন্দির ইস্যুতে বড়ো মন্তব্য করেছেন। আদিত্যানাথ বলেছেন, ” এটা আমাদের জন্য দুঃখের সময়, জনভাবনার সন্মান হওয়া উচিত ছিল, কিন্তু মামলায় ধর্য্য রাখা প্রয়োজন। দিপাবলীতে আমি সুখবর নিয়ে যাচ্ছি, শীঘ্রই কিছু একটা ভালো হবে।” জানিয়ে দি বলেছিলেন যদি আদালত সাবরিমালা নিয়ে শীঘ্রই রায় দিতে পারে তাহলে এই বিষয়েও রায় দেওয়া উচিত।

যদিও আদালত রামমন্দির ইস্যুকে ২০১৯ পর্যন্ত টেনে নিয়ে যেতে চাইছেন। যোগী আদিত্যানাথ বলেছেন আদালতের উচিত এই মামলায় শীঘ্রই রায় দেওয়া তবে এখন বোঝা যাচ্ছে আদালত থেকে রায় পাওয়ার সম্ভাবনা নেই। তাই এবার যোগী আদিত্যানাথ এই বিষয়ে পদক্ষেপ নিতে চলেছেন এমনটাই সংকেত মিলছে।

জানিয়ে দি, যোগী আদিত্যানাথ সোমবার বলেছেন ধর্মের জন্য বলিদান দিতে প্রস্তুত থাকুন। এর থেকেও একটা বড়ো সংকেত দিয়েছেন যোগী আদিত্যানাথ। তবে দিপাবলীতে উনি কি সুসংবাদ আনছেন সেই ব্যাপারে কিছু জানাননি।