Press "Enter" to skip to content

‘যোগী আদিত্যানাথের কোলে বানর’- এই ছবির আসল কাহিনী জনগণকে জানালেন যোগীজি নিজেই।

দেশের সবথেকে বড়ো রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী একদিকে যেমন জনতার সেবা করার জন্য রাজনীতিতে যোগ দিয়েছেন তেমনি অন্যান্য প্রাণীদেরও বেশ ভালোবাসেন। সম্প্রতি মথুরা গিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ার তার ভাইরাল একটা ছবি সম্পর্কে জানান। যা যোগীজি প্রাণী প্রেমের ছবিকে ব্যাক্ত করে। মথুরায় এক সভাকে সম্বোধিত করে বলেন, ,”আজ আমি যখন এখন এলাম আমাকে জানানো হয়েছে যে বানররা খুব জ্বালাতন করে। আমি জানিয়েছি বজরংবলীর আরতি করা শুরু করো, হনুমাম চল্লিশার পাঠ করো, কখনোই ক্ষতি করবে না। নিশ্চিতভাবে কখনোই ক্ষতি করবে না। আমি নিজে এইরকম প্রমান পেয়েছি।” যোগীজি বলেন, ” আপনারা আমার একটা ছবি নিশ্চয় দেখেছেন, যখন আমি গোরক্ষপুরের কার্যালয়ে কাজ করতাম তখন এক আমার কোলে এসে বসে থাকতো।

ওটা কোনো পোষা বানর ছিল না, ওটা জংলী বানর বহিল। কিন্তু একদিন শীতকালীন সময়ে আমি প্রাঙ্গনে পায়চারি করছিলাম তখন দেখি একটা স্থানে বসে একটা বানর ঠান্ডায় কাঁপছিল। আমি তখন আমার কর্মচারীকে নির্দেশ দি , যাও ফল নিয়ে এসো। কর্মচারী কলা নিয়ে এলে আমি সেই কলা বানরকে দিয়ে দি। বানর কলা নিয়ে চলে যায়। পরের দিন দেখি ঠিক ওই স্থানেই বানর বসে আছে। আমি আবার কর্মচারীকে ডেকে ফল অনিয়ে বানরকে দি, যারপর সে চলে যায়।

প্রত্যেক দিন এইভাবেই বানর আসতো এবং ফল নেওয়ার সময় এক ধাপ নীচে দাঁড়িয়ে থাকতে। পরে আমি ৪-৫ দিনের জন্য বাইরে গেছিলাম। তখন সম্ভবত বানর আমাকে খুঁজে পায়নি। তারপর হঠাৎ একদিন আমি কার্যালয়ের ভেতরে কাজ করছিলাম, লক্ষ করলাম বানর আমাকে দেখে উকি ঝুঁকি করছে। আমাকে সোজাসুজি দেখতে পাচ্ছে না তাই মাথা এদিক ওদিক করে তাকাচ্ছে।

বানরের কান্ড আমাকে হাসিয়েছিলো এবং আমি আবার কর্মচারীকে ফল আনার জন্য বলি। কর্মচারী ফল আনতে গেলে বানর আমার টেবিলের এসে বসে পরে এবং ফল পেলেই চলে যায়। তারপর থেকে এটা নিয়মিত হতো যে বানর এসে আমার টেবিলে বা কখনো আমার কোলে বসে থাকতো এবং ফল পেলেয় চলে যেত।” এইভাবেই বানর যোগী আদিত্যানাথজির সুন্দর মানসিকতার প্রতি আকর্ষিত হয়েছিল। জানিয়ে দি যোগীজি সম্প্রতি মথুরা গিয়ে তার ভাইরাল হওয়া ছবি নিয়ে বলতে গিয়ে পুরো ঘটনাটি বিস্তারের সাথে জনগণের সামনে বলেন।