Press "Enter" to skip to content

মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের বড়ো ঘোষণা! ১৫ তারিখের পর গঙ্গা…

২০১৪ তে মোদী সরকার আসার পরেই পন নেওয়া হয়েছিল যে দেশকে পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখা হবে এবং আমাদের দেশের যে ঐতিহ্যবাহী সম্পদ রয়েছে সেগুলোকেও পরিষ্কার রাখা হবে। যাতে ভবিষ্যতের সমাজকে দূষণ, নোংরা পরিবেশের মোকাবিলা করতে না হয় এবং একই সাথে আমরা আমাদের পূর্বপুরুষদের ঐতিহ্য ঠিকই তেমনি থাকে যেমনটা আগে ছিল। সেই সময় এটাও বলা হয়েছিল যে গঙ্গা মাকে পুনরায় স্বচ্ছ করে তুলতে স্বচ্ছতা অভিযানের উপর কাজ করা হবে। গঙ্গাকে পরিষ্কার ও স্বচ্ছ করার জন্য কেন্দ্র সরকার নমামী গঙ্গা নামক অভিযান শুরু করেছে।

দেশের যে রাজ্যগুলির মধ্যে দিয়ে গঙ্গা গিয়েছে সেই রাজ্যগুলিকে ফান্ড দেবে কেন্দ্র সরকার। নমামী গঙ্গা অভিযানের জন্য সরকার ২০ হাজার কোটি টাকার প্রকল্প শুরু করেছে। এই প্রকল্প নিয়ে উত্তরপ্রদেশের মূখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর প্রশংসায় মুখরিত হয়েছেন। যোগীজি বলেন, মা গঙ্গাকে নির্মল ও স্বচ্ছ করার জন্য ২০ হাজার কোটি টাকার বরাদ্দ করা হয়েছে যার মধ্যে সবথেকে বেশি টাকা(সাড়ে ৮ হাজার কোটি টাকা) উত্তরপ্রদেশকে দেওয়া হয়েছে।

যোগী আদিত্যনাথ বলেন, আমরা অবশ্যই গঙ্গাকে পরিস্কার করে ফেলবো এটা আমাদের পূর্বজদের ঐতিহ্য। আমাদের উচিত গঙ্গাতে নোংরা না ফেলানো। আগামী বছর জানুয়ারি মাসে কুম্ভ মেলা শুরু হতে চলেছে এবং ১৫ জানুয়ারি প্রথম স্নান দিবস পালন হবে। এই বিষয়ের উপর লক্ষ রেখে যোগী আদিত্যনাথ বলেন, ১৫ ডিসেম্বরের পর রাজ্যের কোনো নালা যেন গঙ্গায় না পড়ে তার নির্দেশ আধিকারিকদের দেওয়া হয়েছে।

কোনো কারখানা হোক বা কোনো প্রতিষ্ঠান বা অন্য কোথাও থেকে নালার জল গঙ্গাতে ফেলানো চলবে বলে জানান যোগী আদিত্যনাথ। আর তার জন্য ১৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত সময় দেওয়া হয়েছে। ১৫ ডিসেম্বরের পর গঙ্গাতে কেউ নালার জল ফেলাচ্ছে এইরকম অভিযোগ পর্যন্ত যেন না আসে তার ব্যাবস্থা করতে নির্দেশ দেন যোগী আদিত্যনাথ। এর পর গঙ্গা মায়ের মূল ধারাকে কোনোভাবে বাধা প্রদান না করে গঙ্গার জলস্তর বাড়ানোর চেষ্টা করা হবে। এর জন্য গঙ্গার উপকূলে গাছ লাগিয়ে ও পুকুর তৈরি করে কাজ করা হবে।