Press "Enter" to skip to content

অযোধ্যায় রাম মন্দির নির্মাণের জন্য যোগী সরকারের বড়ো ঘোষণা।

ের ইস্যু কয়েক বছর ধরে টান চলে আসছে যেখানে কংগ্রেসের উকিল তাদের সমগ্র প্রচেষ্টা ঝুকে দিয়েছে তৈরি আটকানোর জন্য। কিন্তু এবার ভগবান শ্রী রামের ভক্তদের বেশি অপেক্ষা করার প্রয়োজন নেই। এবার উত্তরপ্রদেশের যোগী সরকার রাম মন্দিরকে নিয়ে বড়ো ঘোষণা করে দিয়েছে। এবার কোর্ট তৈরির উপর আদেশ না শোনালে সাংসদের সাহায্যে তৈরির পদক্ষেপ নেওয়া হবে যার দাবি বহু বছর ধরে মানুষ করে আসছে। সম্প্রতি পাওয়া খবর অনুযায়ী যোগী সরকারে থাকা উপমুখ্যমন্ত্রী কেশব প্রসাদ মৌযা নিয়ে বড়ো ঘোষণা করে হিন্দু বিরোধী কংগ্রেসের রাতের ঘুম উড়িয়ে দিয়েছে এবং একই সাথে দেশের মধ্যে একটা আশা জাগিয়েছেন। কেশব প্রসাদ মৌর্যা বলেন, আমার সম্পুর্ন ভরসা আছে যে যদি প্রয়োজন পড়ে এবং কোনো রাস্তা না পাওয়া যায় তাহলে মোদী সরকার অযোধ্যায় নির্মাণের জন্য বিধাইকার রাস্তা বেছে নেবে।

এই বিষয়ের দাবি বহুদিন ধরে চলে আসছে কারণ সাংসদে রাম মন্দিরের উপর বিধেয়ক আনা হয় না। উপমুখমন্ত্রী কেশব প্রসাদ মৌর্য বলেন সাংসদের রাস্তায় তখনই সম্পন্ন হবে যখন আমরা দুটি সদনেই মজবুত স্থিতে চলে আসব। উনি বলেন, বর্তমান সময়ে দুই সদনে আমাদের কাছে পর্যাপ্ত সংখ্যাবল নেই। আমার এটা লোকসভায় তো নিয়ে চলে আসব কিন্ত রাজ্যসভায় আমাদের সংখ্যাবল কম আছে আর এটা প্রত্যেক রামভক্ত জানে। ২০ রাজ্যে মোদী সরকার নিজেদের আধিপত্য বিস্তার করেছে কিন্তু দুই সাংসদে আমাদের সংখ্যাবল মজবুত রাখতে হলে আগত ৫ বছর একইভাবে কাজ চালিয়ে যেতে হবে।

তবেই কোর্টের অনুমতি না নিয়েই অযোধ্যায় রাম মন্দির নির্মাণ করা সম্ভব হবে। বর্তমানে তিন তালাক, হালালা, খতানর মতো বিষয়ে বাধ্য হয়ে সরকারকে কোর্টের মুখ দেখতে হচ্ছে কিন্তু আজ বিজেপি সরকার প্রমান করে দিয়েছে যে তাদের নিশানা লক্ষ্য বরাবরই রয়েছে। প্রয়োজন শুধু সময়ের এবং রাজ্যসভায় বহুমতের। তার পরে অযোধ্যায় রাম মন্দির নির্মানের পথে কোনো কাঁটা বাধা হয়ে দাঁড়াবে না। মৌর্যা বলেছেন, আমাদের কাছে মজবুত সংখ্যাবল থাকলে আমরা এটার সৎব্যাবহার করবো, কোনো খারাপ কাজে ব্যবহার করবো না। উনি বলেন রামমন্দিরের শুনানি সুপ্রিম কোর্টে হচ্ছে আর যদি রাম মন্দির নির্মাণ এখন সম্পন্ন হয় তাহলে বিশ্বহিন্দু পরিষদের মহান নেতা অশোক সিংগেল, মহন্ত রামচন্দ্র দাস পরমহংস এবং নিজের বলিদান দেওয়া করসেবকদের সত্য শ্রদ্ধাঞ্জলি দেওয়া হবে।

আপনাদের জানিয়ে দি, এটা চরম সত্য যে রাজ্যে আগত প্রত্যেক নির্বাচন ও ২০১৯ লোকসভা নির্বাচনে বিজেপি লাগাতার জয়লাভ করতে থাকে তাহলে রাজ্যসভায় বিজেপি নিশ্চিত বহুমত লাভ করবে। রাজ্যসভায় বহুমত পেলে ধারা ৩৭০,৩৫A, অথবা রাম মন্দিরের মতো বিষয়গুলির সমস্যার সমাধান করা বিজেপির কাছে খুবই সহজ হয়ে যাবে। প্রসঙ্গত, আপনাদের জানিয়ে দি রাম মন্দির হোক বা হালালা হোক প্রত্যেক বিষয়ে কংগ্রেস মোদী সরকারের বিরোধ করবে কারণ তাদেরই উকিল কোর্টে এই সব বিষয়ে সরকারের বিরোধে কাজ চালাচ্ছে।