Press "Enter" to skip to content

ঘুম উড়ে গেল কট্টরপন্থীদের! পবিত্র শহর মথুরায় অবৈধভাবে নির্মাণ মাজারকে ভেঙে গুঁড়িয়ে দিলো যোগী আদিত্যানাথের সরকার।

উত্তরপ্রদেশে ের সরকার কট্টরপন্থীদের জন্য বড়ো বাঁধা হয়ে দাঁড়িয়েছে। মুখ্যমন্ত্রী ের নেতৃত্বে উত্তরপ্রদেশে গতকাল দারুন একটা কাজ হয়েছে। শ্রী কৃষ্ণের পবিত্র শহর মথুরায় অবৈধভাবে গড়ে উঠা মাজারকে(ইসলামিক সমাধিস্থল) সাফ করে দেওয়া হয়েছে। মথুরার গোবর্ধন পর্বতের পরিক্রমা মার্গে কট্টরপন্থীরা অবৈধভাবে মাজার বানিয়ে রেখেছিল। এই মাজার সরকারি জমির উপর তৈরি করেছিল কট্টরপন্থীরা। সরকারি জমিকে ইসলামিকরণ ও হিন্দুদের থেকে টাকা আয় করার জন্য এই মাজার তৈরি করেছিল কট্টরপন্থীরা। হিন্দুরা গোবর্ধন পর্বত ভ্রমণ করতে এসে এই মাজারে(ইসলামিক সমাধিস্থল) টাকা দান করে যেত। এই মাজারের জন্য যাতায়াতেরও সমস্যা হতো।

কিন্তু শেষমেষ যোগী সরকার এই মাজারকে ভেঙে গুড়িয়ে দিয়ে সরকারি জমিকে মুক্ত করলো এবং একই সাথে শ্রী কৃষ্ণের শহরকে অপবিত্র করা নোংরা সাফ হয়ে গেছে। যোগী সরকারের এই সিদ্ধান্তে কট্টরপন্থী ও সেকুলাররা ক্ষোপ প্রকাশ করতে শুরু করেছে। কিন্তু যোগী সরকার পরিষ্কার জানিয়ে দিয়েছে যে তাদের ক্ষোপ প্রদর্শনে কোনো প্রভাব পড়বে না। উত্তরপ্রদেশের সরকার তাদের নিয়মকানুন অবশ্যই পালন করবে এবং অবৈধ জমিকে ইসলামিকরণ হওয়ার হাত থেকে মুক্ত করবে।

জানিয়ে দি, ইসলামে মাজার হারাম অর্থাৎ মাজার তৈরি করা নিষেধ। সৌদি,UAE বা অন্য ইসলামিক দেশে কোথাও একটাও মাজারের অস্থিত নেই। কিন্তু ভারতের কিছু কট্টরপন্থী ইসলামের নামে সরকারি জমি অবৈধভাবে কব্জা করে সেখানে মাজার তৈরি করে ফেলে। আসলে কট্টরপন্থীদের উদেশ্য সরকারি জমির ইসলামিকরণ করা এবং মুর্খ হিন্দুদের কাছে কিছু টাকা লুটে নেওয়া।

হিন্দুরা মাজারকে মন্দির ভেবে টাকা দান করে চলে যায় যার ফলে কট্টরপন্থীদের বেশ ভলোরকম লাভ হয়। ভারতের সব শহরেই এমন অবৈধ মাজার বর্তমান কিন্তু রাজ্য সরকারগুলি ভোট ব্যাঙ্কের লোভে কোন পদক্ষেপ নেয় না। কিন্তু যোগী আদিত্যানাথের সরকার কট্টরপন্থীদের ঘুম উড়িয়ে দেওয়ার মতো কাজ শুরু করেছেন যা অবশ্যই স্বাগত করার মতো।