Press "Enter" to skip to content

দাঙ্গাবাজ বদর আলীর বিরুদ্ধে যোগী সরকারের একশন শুরু! বুল ডোজার নামিয়ে ভাঙা হল অবৈধ নির্মান।

চোর তাবরেজ আনসারী নামে কট্টরপন্থীরা দেশজুড়ে উৎপাত শুরু করেছে তা চরম পর্যায়ে পৌঁছে গেছে। দেশের প্রায় প্রত্যেকটি প্রান্তে, বড়ো বড়ো শহরে বিক্ষোপ প্রদর্শন ও ভাঙচুর করার চেষ্টায় রয়েছে জেহাদীরা। জানিয়ে দি, তাবরেজ আনসারী ঝাড়খণ্ডে চুরি করতে গিয়ে ধরা পড়েছিল এবং পুলিশের হেফাজতে মারা গেছিল। কিন্তু দেশের মিডিয়া ঘটনাটিকে মব লিঞ্চিং বলে চালিয়ে ছিল। আর সেটাকেই ইস্যু করে কট্টরপন্থীরা দেশের নানা প্রান্তে উৎপাত করেই চলেছে। বেশিরভাগ রাজ্যের সরকার এই উৎপাতকারী কট্টরপন্থীদের দমন করতে ব্যর্থ হয়েছে।

একমাত্র যোগী আদিত্যনাথের সরকার উৎপাতকারীদের উপর কড়া পদক্ষেপ নিয়েছে। যোগী পুলিশ উন্মাদীদের খুঁজে খুঁজে বেধড়ক পিটিয়েছে বলে সূত্রের খবর।মেরঠে উন্মাদীদের দৌড় করিয়ে যোগী পুলিশ পিটিয়েছে। উত্তর প্রদেশে কট্টরপন্থীরা যে উৎপাত করছে তার মধ্যে একজন বড়ো মাফিয়ার নাম সামনে এসেছে। মাফিয়া বদর আলীর নেতৃত্বে উন্মাদীরা মেরঠ সহ UP এর অন্য জায়গায় হিংসা ছড়িয়েছিল। যোগী সরকার বদর আলীর উপর কার্যবাহী শুরু করে দিয়েছে এবং তার অবৈধ আড্ডাগুলিকে ভাঙার কাজ শুরু করেছে।

বদর আলী মেরঠের নান স্থানে অবৈধ নির্মাণ করেছে। যোগী সরকার অবৈধ নির্মানগুলিকে ভেঙে গুঁড়িয়ে জমি খালি করছে। সরকার বুল ডোজার নামিয়ে বদর আলীর নির্মাণগুলিকে ভাঙার জন্য নেমে পড়েছে। বদর আলী সহ অন্য দাঙ্গাবাজের বিরুদ্ধেও সরকার সূচি তৈরি করে একশন শুরু করেছে। দাঙ্গাবাজদের উৎপাতের জন্য হিন্দুদের পলায়ন করতে হয়েছিল। হিন্দুরা তাদের বাড়ি বিক্রি করে পলায়ন করেছিল। সরকার হিন্দুদের ফিরিয়ে আনার জন্য তৎকাল প্রয়াস করেছে। হিন্দুদের বিক্রি হওয়া বাড়িগুলির রেজিস্ট্রেশন বাতিল করা হয়েছে।