Press "Enter" to skip to content

হনুমানের বেশ ধরে ভিক্ষা করছিল মুসলিম যুবক! সন্দেহ হতেই ধরে নিয়ে জেলে ঢুকিয়ে দিলো পুলিশ

লখনউঃ উত্তর প্রদেশের বেিতে এক যুবক হনুমানের বেশে ভিক্ষা চাইতে গিয়ে হল। সবথেকে অবাক করা ব্যাপার হল, ওই যুবক মুসলিম সম্প্রদায়ের অন্ত্রভুক্ত। ধরা পরার পর ওই যুবককে পুলিশের হাতে তুলি দেওয়া হয়। প্রসঙ্গত, মুরাদাবাদের বাসিন্দা নসিম হনুমানের বেশে সুভাষ নগরে ভিক্ষাবৃত্তি করছিল। সন্দেহ হতেই স্থানীয় মানুষ তাঁকে ধরে জিজ্ঞাসাবাদ করে, আর সে নিজের নাম ‘নসিম” বলে স্বীকার করে।

স্থানীয় মানুষ জানান, নসিমকে দেখেই বোঝা যাচ্ছিল যে, সে হিন্দু মহল্লাতে ভিক্ষা চাইতে এসেছে। অভিের পর সুভাষনগর পুলিশ নসিমের বিরুদ্ধে রুপ বদলের অভিযোগ দায়ের করে নেয়। পাওয়া তথ্য অনুযায়ী, সবার আগে বজরং দলের কর্মীরা হনুমানের অপমান হচ্ছে বলে যুবক কে পাকরাও করে। আর এরপর জেরায় ওই যুবক নিজের নাম নসিম বলে জানায়।

স্থানীয় মানুষ জানায়, হনুমানের বেশ ধরে অনেকবার সে এলাকায় ভিক্ষা চেয়েছে, কিন্তু এবার তাঁর উপর সন্দেহ হওয়াতে তাঁকে ধরে জিজ্ঞাসাবাদ চালানো হয়। জিজ্ঞাসাবাদে অভিযুক্ত স্বীকার করে যে, সে প্রথমে লয়লা মজনু এর বেশ ধরে ভিক্ষা চাইত, কিন্তু ভিক্ষা ঠিকঠাক না পাওয়ার জন্য সে হনুমানের বেশ ধরেছে। নসিম জানায় যে, সে তিনমাস ধরে ডেলাপীর এর বস্তি এলাকায় নিজের স্ত্রী মুস্কানের সাথে বসবাস করছে।

পুলিশ অভিযুক্তের থেকে আধার কার্ড উদ্ধার করে। অভিযুক্তের আরেকজন সঙ্গিও আছে, আর সে এখন । আপাতত নসিমকে জেল হেফাজতে রকাহা হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদের সময় নসিম জানায় যে, সে একজন শিল্পী আর পয়সা কামানর জন্য সে নিজের বেশভূষা পালটাতে থাকে। পুলিশ এখনো যুবকের পরিবারের খোঁজ পায়নি বলে জানা যাচ্ছে।