Press "Enter" to skip to content

হিন্দু বিরোধী মন্তব্য করে চরম বেকায়দায় জাকির নায়েক, ভাষণের উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করলো মালেশিয়া সরকার।

বিতর্কিত ইসলামিক ধর্মগুরু জাকির নায়েক (Zakir Naik) এর বিরুদ্ধে মালয়েশিয়া সরকার কড়া পদক্ষেপ নিলো। মালয়েশিয়া সরকার জানিয়েছে যে, জাকির নায়েক দেশে এবার আর কোথাও ধর্ম নিয়ে ভাষণ দিতে পারবেনা। স্থানীয় মিডিয়া এর রিপোর্ট অনুযায়ী, মালয়েশিয়ার হিন্দুদের বিরুদ্ধে বিতর্কিত মন্তব্য করার পর মালয়েশিয়া পুলিশে জাকির নায়েককে টানা ১০ ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদ চালায়। এরপর সরকার এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

৫৩ বছর বয়সী জাকের নায়েক আমেরিকায় ৯/১১ তে হওয়া জঙ্গি হামলা নিয়ে লাদেনকে ক্লিনচিট দিয়ে ওই হামলা কে আমেরিকা সরকারের ষড়যন্ত্র বলে আখ্যা দিয়েছিল। ২০১৪ সালে ভারতে মোদী সরকার ক্ষমতায় আসার পরেই জাকির নায়েক ভারত ছেড়ে মালয়িশায়া চলে যায়, আর সেখানকার সরকার তাঁকে স্থায়ী নাগরিকত্ব দিয়ে দেয়।

মালয়েশিয়া পুলিশ জানিয়েছে, দেশের সুরক্ষার জন্য জাকির নায়েকের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। জাকির নায়েকের উপর অভিযোগ ছিল যে, সে ৩রা আগস্ট মালয়েশিয়ার কোটা বারুতে ধর্মীয় প্রচারের সময় মালয়েশিয়ার হিন্দু আর চীনি নাগরিকদের বিরুদ্ধে বিতর্কিত মন্তব্য করেছিল। জাকিরের এই মন্তব্যের পর থেকেই মালয়েশিয়া সরকার মালয়েশিয়ার হিন্দু এবং চীনি নাগরকেরা তাঁর বিরুদ্ধে তেতে আছে। এমনকি মালয়েশিয়া সরকারের মন্ত্রী দেশে অশান্তি ছড়ানোর অভিযোগ করে জাকির নায়েককে ভারতের হাতে তুলে দেবে বলে জানিয়েছিলেন।

মিডিয়া রিপোর্ট অনুযায়ী জাকির নায়েক বলেছিল, ‘মালয়েশিয়ার হিন্দুদের ভারতের মুসলিমদের তুলনায় ১০০ গুন বেশি অধিকার দেওয়া হয়েছে।” জাকির নায়েক বলেছিল, মালয়শিয়ার হিন্দুরা মালয়শিয়ার প্রধানমন্ত্রীর থেকে বেশি বিশ্বাস ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে করে, এবং তাঁরা নরেন্দ্র মোদীর প্রতি বফাদার।

you're currently offline